ডি ককের সেঞ্চুরিতে বড় ব্যবধানে জিতল প্রোটিয়ারা

Social Share

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচেই বড় ব্যবধানে জয় পেল দক্ষিণ আফ্রিকা। অধিনায়ক ও উইকেটরক্ষক কুইন্টন ডি ককের অনবদ্য সেঞ্চুরিতে ১৪ বল বাকি থাকতে ৭ উইকেটের জয় তুলে নেয় প্রোটিয়ারা।

গতকাল মঙ্গলবার কেপটাউনের নিউল্যান্ডসে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা দুর্দান্ত করলেও দলীয় ৫১ রানে প্রথম উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। এরপর স্কোরবোর্ডে ৮৪ রান ওঠতেই টপ-অর্ডারের ৪ ব্যাটসম্যানকে হারায় ইংলিশরা।

ইংল্যান্ডকে বিপর্যয়ের হাত থেকে বাঁচায় জোন ডেনলির ব্যাট। ১০৩ বলে ৬ চার ও ২ ছ্ক্কায় ৮৩ রান করেন তিনি। শেষদিকে ৪২ বলে ৪০ রান করে দলকে লড়াকু সংগ্রহ এনে দেন ক্রিস ওকস।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন তাবরিজ শামসি।

২৫৯ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে দলীয় ২৫ রানে ওপেনার রিজা হ্যান্ডরিক্স (৬) বিদায় নিলেও প্রোটিয়াদের রানের চাকা থমকে যায়নি। ইংলিশ বোলারদের হতাশ করে ১৭৩ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের ভিত গড়ে দেন আরেক ওপেনার ডি কক ও টেম্বা বাভুমা। এরপর দলীয় ১৯৮ রানে জো রুটের বলে আউট হন ডি কক। তবে তার আগে ১১৩ বলে ১০৭ রান করে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৫তম সেঞ্চুরি তুলে নেন তিনি।

ডি কক ওয়ানডে ইতিহাসে দ্বিতীয়জন, যিনি  ‍অধিনায়ক-ওপেনার-উইকেটরক্ষক হিসেবে সেঞ্চুরি পেলেন। আগে এই মাইলফলক স্পর্শ করেছিলেন সাবেক অস্ট্রেলিয়ান তারকা অ্যাডাম গিলক্রিস্ট। ২০০৬ সালে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পার্থে ১১৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন তিনি।

ডি ককের মতো এদিন সেঞ্চুরি উদযাপন করতে পারতেন বাভুমাও। কিন্তু ক্রিস জর্ডানের বলে এলবিডব্লিউ’র শিকার হয়ে দুই রানের জন্য সেঞ্চুরি বঞ্চিত হোন তিনি। বাভুমার ১০৩ বলে ৯৮ রানের ইনিংসটি সাজানো ছিল ৫ চার ও ২ ছক্কায়।

এরপর রসি ফন ডার ডাসেনের ৩৮ ও জেজে স্মাটসের ৭ রানের সুবাদে নির্বিঘ্নে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা।