টার্গেট পশ্চিমবঙ্গের মুসলিম অধ্যুষিত ৪৪টি আসন, আব্বাস সিদ্দিকীর নতুন দল ‘ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট’

31
Social Share

ভারতে সমস্ত জল্পনায় জল ঢেলে পূর্ব ঘোষণা মতো নিজের রাজনৈতিক দলের নাম ঘোষণা করলেন ফুরফুর শরিফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী (Abbas Siddiqui)৷ মুসলিম ধর্মগুরু সিদ্দিকীর নয়া এই দলের নাম ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট (Indian Secular Front)৷ উল্লেখ্য, এটাই রাজ্যে প্রথম কোনও ধর্মগুরুর দল৷

ক্যানিংয়ে এক ধর্মসভায় আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, কর্ম সংস্থান, কৃষি আইন বাতিল, সংবিধানকে পাঠ্যসূচীতে অন্তর্ভুক্ত করা-সহ একাধিক দাবি জানিয়ে শীঘ্রই আন্দোলনে নামবে তাঁর দল। সম্প্রতি ওয়াইসির (Asaduddin Owaisi) সঙ্গে সাক্ষাতের পর জোট করার জল্পনা ছড়ায়। তবে জোট না করে কেন নিজস্ব দল ঘোষণা করলেন? এই প্রশ্নের জবাবে আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, আমি কিং মেকার। আমি প্রার্থী তৈরি করি, প্রার্থী হই না।

তিনি জানান, আমিই বাংলার ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করব। যদি ৫০-৬০টি আসন জিততে পারি তাহলে আমরাই পশ্চিমবঙ্গের ভবিষ্যৎ ঠিক করব।সিদ্দিকী বলেন, যারা আমাদের কথা শুনবে, আমাদের জন্য ভাববে, আমাদের ছেলেমেয়েদের বিনা পয়সায় পড়ানোর ব্যবস্থা করবে, আমরা তাদের সঙ্গে থাকব।

আব্বাস সিদ্দিকী বলেন, সমাজে মুসলিম, দলিত, আদিবাসী, এমনকি হিন্দু সম্প্রদায়ের একটা বড় অংশ পিছিয়ে পড়েছে৷ শিক্ষা, স্বাস্থ্য কোনও দিক দিয়েই পরিষেবা পান না তাঁরা৷ অন্ধকারের মধ্যে রয়েছে তাঁরা৷ জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে বঞ্চিত মানুষের কণ্ঠ হয়ে ওঠাই আমার দলের লক্ষ্য৷ শিক্ষা, খাদ্য, বাসস্থানের মতো মৌলিক অধিকারগুলো মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করব৷

সূত্রের খবর, আসন্ন বিধানসভা ভোটে রাজ্যের সব আসনে প্রার্থী দেবে না ইন্ডিয়ান সেক্যুলার ফ্রন্ট৷ সংখ্যালঘু অধ্যুষিত দুই চব্বিশ পরগণা, হাওড়া, নদিয়া, মুর্শিদাবাদের মতো বেশ কয়েকটি জেলায় প্রার্থী দেবে আব্বাস সিদ্দিকীর দল। তাদের টার্গেট ৪৪টির মতো সংখ্যালঘু প্রধান আসন৷ এই আসনগুলিতে ৫০ শতাংশেরও বেশি মুসলিম ভোট৷