জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে ডা. এ বি এম আবদুল্লাহর সহধর্মিণী

18
Social Share

প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ইউজিসি অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহর সহধর্মিণী, তেজগাঁও কলেজের সমাজকল্যাণ বিভাগের সাবেক অধ্যাপক মাহমুদা বেগম জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। গত শুক্রবার রাত থেকে তিনি গ্রিন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। মঙ্গলবার রাত থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হয়েছে।

জানা গেছে, গতকাল অক্সিজেন সেচুরেশন ভালো থাকলেও আজ নেমে গেছে ৬৫ থেকে ৭০-এ। রক্তচাপ নন-রেকর্ডেবল।

ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ আজ সকাল ১১টায় আবেগ তাড়িত হয়ে বলেন, মনে হয় টার্মিনাল স্টেজ। হয়তো আর তেমন আশা নেই। তবে আল্লাহ চাইলে মিরাকল কিছু করতেও পারেন।

তিনি সবার দোয়া কামনা করে বলেন, আমার স্ত্রীর যদি হায়াত থাকে তাহলে আল্লাহ যেন হায়াত বাড়িয়ে দেন। আর হায়াত না থাকলে আল্লাহ যেন ঈমানের সঙ্গে মৃত্যু নসিব করেন।

ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ দম্পতির একমাত্র মেয়ে ডা. সাদিয়া সাবাহ্ মায়ের জন্য শুধুই কান্নাকাটি করছেন।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২২ ডিসেম্বর থেকে গ্রিন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ দম্পতি। তিনি ধীরে ধীরে সুস্থ হলেও ওনার সহধর্মিণী মাহমুদা বেগমের ফুসফুসে মারাত্মক সংক্রমণ ধরা পড়ে। একপর্যায়ে আইসিইউতে নেওয়া হয়। সেখান থেকে বেশ সুস্থ হয়ে কেবিনেও ফিরে আসেন এবং বাসায় যাওয়ারও পরিকল্পনা করেন। কিন্তু গত শুক্রবার প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে প্রথমে এইচডিইউতে হাই-ফ্লো অক্সিজেন দেওয়া হয়। একপর্যায়ে আইসিইউতে নিয়ে লাইফ সাপোর্ট দেওয়া হয়।