জি কে শামীমের জামিন প্রত্যাহার

অস্ত্র মামলায় বহুল আলোচিত জি কে শামীমের জামিন প্রত্যাহার করেছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ রবিবার (৮ মার্চ) এ আদেশ দেন। এর আগে একই আদালত গত ৬ ফেব্রুয়ারি শামীমের জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে মাদক মামলায় গত ৪ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর হাইকোর্ট বেঞ্চ এবং অস্ত্র মামলায় গত ৬ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি এ কে এম আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি এস এম মজিবুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ জি কে শামীমের জামিন মঞ্জুর করেন। এই দুই মামলায় জামিন হওয়ায় হাইকোর্টে আরো দুটি দুর্নীতির মামলায় জামিন আবেদন করা হয়। যেকোনো দিন ওই আবেদন শুনানির জন্য উপস্থাপন করা হতে পারে বলে জানান জি কে শামীমের আইনজীবী শওকত ওসমান।

আদালত ওই দুই মামলায় অন্তর্বর্তীকালীন জামিনের পাশাপাশি রুল জারি করেন। রুলে জি কে শামীমকে কেন নিয়মিত জামিন দেওয়া হবে না- তা জানতে চাওয়া হয়েছে। চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়। এই দুই মামলায় এরই মধ্যে নিম্ন আদালতে জি কে শামীমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।

জি কে শামীমের জামিন প্রসঙ্গে গতকাল শনিবার (৭ মার্চ) কথা বলেন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি বলেন জি কে শামীমকে অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে দেওয়া হাইকোর্টের জামিন প্রত্যাহারে আবেদন করবে রাষ্ট্রপক্ষ।

মাহবুবে আলম গতকাল বলেছিলেন, এই জামিনের কোনো তথ্য এর আগে আমাকে জানানো হয়নি। সংশ্লিষ্ট আদালতে দায়িত্বরত রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীর কোনো গাফিলতি রয়েছে কি-না, তা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

দেশে ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানে গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর গুলশানের নিকেতন থেকে জি কে শামীমকে আটক করা হয়। পরদিন ২১ সেপ্টেম্বর তাঁর বিরুদ্ধে গুলশান থানায় অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা হয়। এই মামলায় নিম্ন আদালত জামিনের আবেদন খারিজ করার পর হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন জি কে শামীম।