ছবিও ভিডিওগুলো জেবুন্নেসার নয়-স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দাবি

45
Social Share

দৈনিক প্রথম আলোর সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে আটক ও হেনস্তার ঘটনায় সমালোচিত হওয়া স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেসা বেগমকে নিয়ে যেন সংবাদ প্রকাশ না করা হয়, সেজন্য তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। কেননা যাকে জেবুন্নেসা হিসেবে পরচার করা হচ্ছে তিনি আদতে জেবুন্নেসা নন। ফলে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেসা বেগম সামাজিকভাবে মর্যাদাহানির শিকার হচ্ছেন বলে এক চিঠিতে জানিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

চিঠিতে বলা হয়েছে, রাষ্ট্রের একজন কর্মকর্তা এবং সাধারণ নাগরিক হিসেবে এতে তার ব্যক্তিগত, পারিবারিক, সামাজিক ও পেশাগত জীবনের মর্যাদাহানি হচ্ছে। এ কারণে অনতিবিলম্বে বিষয়টি সকল প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়াকে কাজী জেবুন্নেসা বেগম, অতিরিক্ত সচিব সম্পর্কে অসত্য সংবাদ, ছবি বা ভিডিও ক্লিপ প্রচার করা থেকে বিরত রাখার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

এছাড়া ওই চিঠিতে বলা হয়েছে জেবুন্নেসার নামে যে সকল ছবি ও ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে সেসকল ছবি ছবি ও ভিডিও কাজী জেবুন্নেসা বেগমের নয়। ওই অনভিপ্রেত ভিডিওর সঙ্গে তিনি যুক্ত নন। তার নাম করে এসব প্রচার করায় অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেসা সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপণ্ণ হচ্ছেন এবং পেশাগত জীবনে মর্যাদাহানি হচ্ছে তার।

সেই চিঠিতে তথ্য অধিদপ্তরের প্রধান হিসেবে ‘প্রধান তথ্য কর্মকর্তা’র স্থলে ‘মহাপরিচালক’ উল্লেখ করা হয়েছে। যা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বহীনতার পরিচয় ফুটে উঠেছে বলে গণমাধ্যমকর্মীরা বলছেন।

জেবুন্নেসাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনা তৈরি হয়েছে। তার দেশে বিদেশে একাধিক বাড়ি রয়েছে বলে প্রচার করা হচ্ছে। আর তিনি দুর্নীতির মাধ্যমে সেগুলোর মালিক বলে অভিযোগ উঠেছে।