চীনে গণহারে ধর্ষণের শিকার হচ্ছেন মুসলিম নারীরা

23
Social Share

চীনের শিনজিয়াং প্রদেশের ১০ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমদের কথিত ‘পুনঃশিক্ষণ’ শিবিরে বন্দী করে রাখা হয়েছে। সেখানে মুসলিম নারীরা ধারাবাহিক ধর্ষণ, যৌন নিপীড়ন এবং নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। ভুক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

চীনের উইঘুর ক্যাম্পগুলোতে আসলে কী হচ্ছে সে বিষয়ে নতুন করে বিস্তারিত তথ্য বিবিসির কাছে এসেছে। সেখানে ভুক্তভোগীরা জানান, চীনের লক্ষ্য হলো, উইঘুরদের সবাইকে শেষ করে দেওয়া

তুরসুনাই জিয়াউদুন নামে এক নারী শিনজিয়াংয়ের বন্দিশিবিরে নয় মাস ছিলেন। গতবছর সেখান থেকে ছাড়া পাওয়ার পর শিনজিয়াং ছেড়ে পালিয়ে প্রথমে কাজাখস্তানে ছিলেন। এরপর চলে যান যুক্তরাষ্ট্র এবং এখন সেখানেই আছেন।

তার ভাষ্য, সেসময় বন্দিশিবিরে করোনার প্রার্দুভাব না থাকার পরও সেখানকার পুরুষরা সব সময় মাস্ক পরত, স্যুট পরত। তবে তাদের পরনে থাকা স্যুট পুলিশের উর্দির মতো নয়।

জিয়াউদুন বলেন, সেই পুরুষেরা কখনও কখনও মাঝরাতের পর শিবিরের সেলে এসে নারী বাছাই করে তাদেরকে ‘বিশেষ’ কক্ষে নিয়ে যেত।

নিজের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে জিয়াউদুন বলেন, তাকে একাধিকবার রাতে সেল থেকে বিশেষ কক্ষে নিয়ে গিয়েছিলেন সেই পুরুষেরা। তিনি আরও জানান, তার সঙ্গে শিবিরে যা ঘটেছে, তা ভোলার নয়।

জিয়াউদুন ছাড়াও সাবেক আরও কিছু বন্দী ও রক্ষী তাদের অভিজ্ঞতা বিবিসি-কে জানিয়েছে। তাদের সবাই ওই শিবিরগুলোতে গণধর্ষণ, যৌন নিপীড়ন ও নির্যাতনের বিবরণ দিয়েছে। বিবিসি