চীনা নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্টে লিক খতিয়ে দেখছে যুক্তরাষ্ট্র

69
Social Share

চীনের একটি নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্টে তেজস্ক্রিয় লিক হয়েছে এমন খবর প্রকাশিত হলে গত সপ্তাহ ধরে বিষয়টি যাচাই-বাছাই ও মূল্যায়ন করছে মাকির্ন যুক্তরাষ্ট্র। চীনের ওই পাওয়ার প্লান্টটিতে ফ্রান্সের একটি কোম্পানির অংশীদারিত্ব রয়েছে। তারাই এই বিপজ্জনক তেজস্ক্রিয় ঝুঁকি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছিল।

অভিযোগ রয়েছে, চীনের গুয়াংডং প্রদেশে তাইসান নিউক্লিয়ার প্লান্টটি বন্ধ হয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে দেশটির নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ তেজস্ক্রিয়তার গ্রহণযোগ্য মাত্রা অতিক্রম করে। এ ব্যাপারে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টকে বিষয়টি চিঠিতে জানায় ফ্রান্সের ওই কোম্পানি। সেই চিঠির কপি মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র কাছে রয়েছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, ফ্রান্স কোম্পানি ফ্রেমাটোম থেকে উদ্বেগজনক এই বার্তার পরও বাইডেন প্রশাসন মনে করছে বিষয়টি এখনো ‘সঙ্কটজনক স্তরে’ পৌঁছায়নি। মার্কিন কর্তৃপক্ষ যেখানে মনে করছে প্লান্টের শ্রমিক ও চীনের জনগণের জন্য পরিস্থিতি বর্তমানে নিরাপত্তা হুমকির স্তরে যায়নি, সেখানে কোনো বিদেশি সংস্থা চীনা রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন অংশীদার থাকার পরও একতরফাভাবে আমেরিকান সরকারের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করবে, এটি অস্বাভাবিক। এই অবস্থা যুক্তরাষ্ট্রকে একটি জটিল পরিস্থিতিতে ফেলেছে যে লিক হওয়ার বিষয়টি চলমান থাকবে নাকি তা ঠিক না করে পরিস্থিতি আরও মারাত্বক পর্যায়ে পৌঁছাবে।

যাইহোক এই উদ্বেগ মারাত্বক পর্যায়ে পৌঁছেছে। গত সপ্তাহে এ ব্যাপারে মার্কিন ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিল একাধিক বৈঠক করেছে। মার্কিন কর্তৃপক্ষ বলেছে, বিষয়টি নিয়ে ডেপুটি লেভেলের দুটি ও অ্যাসিসটেন্ট সেক্রেটারি লেভেলের একটি বৈঠক করেছে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, চীন বিষয়ে কাউন্সিলের সিনিওয়র ডিরেক্টর লরা রোজেনবার্গার এবং অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কিত সিনিয়র ডিরেক্টর ম্যালোরি স্টুয়ার্ট।

সূত্র বলছে, বাইডেন প্রশাসন বিষয়টি নিয়ে ফ্রান্স সরকার ও নিজেদের বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করেছে। যুক্তরাষ্ট্র চীন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছে। যদিও চীনের সঙ্গে যোগাযোগের বিষয়টি অস্পষ্ট।

চীনে পাওয়ার প্লান্টে লিক হওয়ার বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মূল্যায়ন কী তা ব্যাখ্যা করেনি মার্কিন প্রশাসন। তবে ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিল জানিয়েছে, স্টেড ডিপার্টমেন্ট ও ডিপার্টমেন্ট অব এনার্জি নিশ্চিত করেছে যদি চীনের জনগণের জন্য কোনো ঝুঁকি তৈরি হয় তবে যুক্তরাষ্ট্রকে পারমানবিক দুর্ঘটনার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত বর্তমান চুক্তি অবহিত করা হবে। সমস্যাটি নিয়ে ফ্রান্স কোম্পানি ফ্রেমাটোম মার্কিন কর্তৃপক্ষের দ্বারস্থ হয়েছে তা সমাধানে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা পেতে।
সূত্র : সিএনএন