চীনকে বড়সড় আর্থিক ঝটকা দিতে এই চীনা পণ্যে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে চলেছে ভারত

Social Share

নয়া দিল্লীঃ চিনের (China) সাথে চলা উত্তেজনার মাঝে ভারত (India) সোলার ইকুয়েপমেন্ট (Solar Equipment) আমদানি কম করার প্রচেষ্টায় লাগল। সুত্র অনুযায়ী, এরজন্য দুটি রণনীতি তৈরি করা হয়ছে। নবায়নযোগ্য জ্বালানি মন্ত্রক (Renewable Energy Ministry) ঘরোয়া ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির (Domestic Manufacturing Companies) সাহায্যের জন্য খুব শীঘ্রই একটি নতুন স্কিমের ঘোষণা করতে চপেলছে। চিনের সাথে চলা উত্তেজনার মধ্যে বিদ্যুত মন্ত্রালয় এই সিদ্ধান্ত প্রচুর পরিমাণে সোলার ইকুয়েপমেন্টের আমদানি কম করার জন্য নিয়েছে। সুত্র অনুযায়ী, MNRE দীর্ঘকালীন এবং সল্পমেয়াদী পরিকল্পনার জন্য রণনীতি তৈরি করেছে।

প্যানেল, সেল, মডিউল, কন্ট্রোলসের অপ্রয়োজনীয় আমদানি রোখার জন্য এই যোজনা বানানো হচ্ছে। চীন থেকে প্রায় ৮০% সোলার ইকুয়েপমেন্ট ভারতে আসে। সুত্র জানায় যে, একমাসের মধ্যে VGF মডেলের ভিত্তিতে নতুন স্কিমের ঘোষণা হয়ে যাবে। সোলার ইকুয়েপমেন্ট ম্যানুফ্যাকচারিং এর জন্য নতুন স্কিমের প্রক্রিয়া দ্রুত চালু হবে। এই প্রোজেক্ট VGF x ব্যয়ের 25-35% হতে পারে।  VGF- Viability Gap Funding অকশনের ভিত্তিতে কোম্পানি গুলো পাবে। নতুন প্রকল্পকে যদি অর্থমন্ত্রক মঞ্জুরি দিয়ে দেয় তাহলে Adani green, TPREL, Vikaram Solar, Azure Power স্বদেশী কোম্পানি গুলো লাভের মুখ দেখবে।

চীনের ষড়যন্ত্রকে ব্যর্থ করতে ভারত সরকার চীনকে তিনটি মোর্চায় ঘিরে ফেলার প্রস্তুতি নিয়েছে। একদিকে ভারত সেনার মোতায়েন এবং গতিবিধি বাড়িয়ে দিয়েছে। আরেকদিকে, কূটনৈতিক এবং আর্থিক দিক থেকেও চীনকে বড়সড় আঘাত দেওয়ার কাজ শুরু করেছে। দুই দেশের মধ্যে সীমান্তে উত্তেজনা বজায় আছে, কিন্তু আপাতত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে।

চীনের মোল্ডোতে সৈন্য কম্যান্ডার স্তরের বৈঠক হবে। আর এই বৈঠকের ডাক দিয়েছে চীন। গালওয়ান উপত্যকায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার জন্য দুই দেশই পদক্ষেপ নিচ্ছে। আবার ভারত চীনের দুঃসাহসের জবাব দেওয়ার জন্যও একদম প্রস্তুত। একদিকে সীমান্তে যেমন সেনার মোতায়েন বাড়িয়ে দেওয়ার হয়েছে, তেমনই বায়ুসেনা এবং স্থলসেনাকে হাই অ্যালার্টে রাখা হয়েছে। দরকার পড়লে সীমান্তে গুলি চালাতেও পিছু হটবে না সেনা এমনই নির্দেশিকা জারি হয়েছে।