চিন থেকে বিশেষ বিমানে কলকাতায় করোনা মোকাবিলায় এল ১০ টন সুরক্ষা সামগ্রী

কলকাতা বিমানবন্দরে নামছে পণ্যসামগ্রী। —টুইটারের ভিডিয়ো থেকে নেওয়া ছবি
Social Share

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে আন্তর্জাতিক উড়ান বন্ধ হয়েছিল ২২ মার্চ থেকে। তবে চালু ছিল পণ্যবাহী বিমান। সরকার তথা ডিরেক্টর জেনারেল অব সিভিল এভিয়েশনের অনুমতি নিয়ে এই সব বিমান চালানো হচ্ছিল। সেই ভাবেই লকডাউনের মধ্যে চিন থেকে কলকাতা বিমানবন্দরে পৌঁছল সুরক্ষা সামগ্রী ভর্তি একটি বিমান। মূলত মাস্ক তৈরির সামগ্রী আনা হয়েছে বলে বিমানবন্দর সূত্রে খবর।

শনিবার রাতে কলকাতা বিমানবন্দরে নামে স্পাইস জেটের একটি পণ্যবাহী বিমান। তাতে ১০ টন করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় সুরক্ষা সামগ্রী আনা হয়েছে। তার মধ্যেও সিংহভাগই মাস্ক তৈরির সামগ্রী। রাতেই সেই পণ্য খালাস করা হয়েছে। গত মাসেও এই স্পাইস জেটের বিমানেই সাংহাই থেকে জরুরি ভিত্তিতে কলকাতায় আসে প্রচুর ইনফ্রারেড থার্মোমিটার। এই থার্মোমিটারগুলিই করোনাভাইরাসের সন্দেহে থার্মাল স্ক্রিনিং করার কাজে লাগানো হচ্ছে।

গত ১৫ এপ্রিল স্পাইস জেটের পক্ষ থেকে একটি বিবৃতিতে জানানো হয়েছিল, চিনের সাংহাই থেকে হায়দরাবাদে এই প্রথম বি৭৩৭ কার্গো চিকিৎসা সামগ্রী পরিবহণের কাজ শুরু করেছে সংস্থা। ওই বিবৃতিতে সংস্থার চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর অজয় সিংহ বলেছিলেন, ‘‘আজ (১৫ এপ্রিল) চিন থেকে জরুরি মেডিক্যাল সামগ্রী পরিবহণের জন্য চিন থেকে স্পাইসজেটের কার্গো বিমান চালু হল। সাংহাই ছাড়াও সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা থেকেও পণ্যসামগ্রী আনার কাজ করছে।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘এ ছাড়া হংকং, আবুধাবি, হো চি মিনের মতো শহরের মধ্যে স্বাভাবিক পণ্য পরিবহণ বিমান চলছে।’’
https://twitter.com/ANI/status/1254292438824386561?ref_src=twsrc%5Etfw%7Ctwcamp%5Etweetembed%7Ctwterm%5E1254292438824386561&ref_url=https%3A%2F%2Fwww.anandabazar.com%2Fstate%2Fcoronavirus-cargo-flight-with-covid-10-related-medical-supplies-landed-kolkata-from-shanghai-dgtl-1.1141894

অন্য দিকে সিঙ্গাপুর থেকে ভারতে এসেছে ১০ লক্ষ পার্সোনাল প্রোটেকশন ইকুইপমেন্ট (পিপিই) বা বর্মবস্ত্র। গত দু’দিন ধরে দু’টি এয়ার ইন্ডিয়া ও একটি ব্লু ডার্ট-এর বিমানে এই সব সামগ্রী দেশে এসেছে বলে সিঙ্গাপুরে ভারতীয় দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এই সব সামগ্রীর মোট ওজন প্রায় ৭৮০ কুইন্টাল।

লকডাউনের পর সরকারের অনুমতি নিয়ে দেশের মধ্যে প্রথম যাত্রিবাহী বিমানে পণ্য পরিবহণ শুরু করে স্পাইস জেট। কার্গো কেবিন ছাড়া যাত্রীদের বসার আসনে করে প্রথম পণ্য পরিবহণ হয় দিল্লি থেকে চেন্নাই। তারপর থেকে দিল্লি, কলকাতা, চেন্নাই, মুম্বই-সহ দেশের সব শহরেই এই ভাবে জরুরি পণ্য পরিবহণ চালাচ্ছে এই সংস্থা। এ ছাড়া বিদেশ থেকে নানা সামগ্রী আনতে কার্গো বিমানও চালাচ্ছে এই সংস্থা।’’