চতুর্থ দেশ হিসেবে হাইপারসোনিক প্রযুক্তি ক্ষমতা দেখাল ভারত

Social Share

ভুবনেশ্বর: সুপারসনিক প্রযুক্তির যুগ পেরিয়ে হাইপারসোনিক প্রযুক্তির যুগে প্রবেশ করল ভারত। হাইপারসোনিক প্রযুক্তির সাহায্যে শব্দের চেয়ে ৬ গুণ বেশি গতিতে ক্রুজ মিসাইল তৈরি করা যাবে। সোমবার ওডিশার বালেশ্বরের হুইলার দ্বীপে এ পি জে আবদুল কালাম টেস্টিং রেঞ্জ থেকে এই পরীক্ষা করা হয়।

প্রথমবারের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়েছিল ভারত। তবে দ্বিতীয়বারের চেষ্টায় সাফল্যের সঙ্গে পরীক্ষা করা হল হাইপারসোনিক টেকনোলজি ডেমনস্ট্রেশন ভেহিকল (Hypersonic Technology Demonstrator Vehicle সংক্ষেপে HSTDV)। এর ফলে আগামী দিনে শব্দের চেয়ে ৬ গুণ বেশি গতির ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করা যাবে।

এই সাফল্যের জন্য ভারতীয় প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনকে (DRDO) অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

এই সাফল্যের ফলে হাইপারসনিক প্রযুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া এবং চিনের পরে চতুর্থ দেশ হিসেবে নাম লেখালো ভারত। এর আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে এই পরীক্ষা চালায় ভারত। তবে সেবার সাফল্য অর্জন করতে পারিনি ভারত।

ডিআরডিও এই সাফল্যকে ঐতিহাসিক বলে উল্লেখ করেছে। ডিআরডিও টুইটে বলেছে, আত্মনির্ভর ভারত গড়ার পথে এই সাফল্য এক উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ। এই প্রযুক্তির সাহায্যে হাইপারসোনিক ক্রুজ মিসাইল তৈরি করা সম্ভব। এটি শব্দের থেকে ছয় গুণ বেশি গতিতে (শব্দের গতি প্রতি সেকেন্ডে ৩৩২ মিটার) ঘণ্টায় ৩ হাজার ৮৩৬ দশমিক ৩৫ মাইল পথ অতিক্রম করতে পারবে। সোমবার এটি উৎক্ষেপণের পর ৩০ কিলোমিটার উচ্চতায় প্রতি সেকেন্ডে ২ কিলোমিটার গতিতে ২০ সেকেন্ডের বেশি সময় চলেছে।