“চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে, এটা হত্যা”, কেকে’র মৃত্যু প্রসঙ্গে বিস্ফোরক দিলীপ ঘোষ

119
Social Share

কলকাতায় কনসার্ট করতে গিয়ে অকালে মারা যান প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী কৃষ্ণকুমার কুন্নাথ, যিনি কেকে নামেই পরিচিত। তার মৃত্যু নিয়ে ইতোমধ্যে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। অনুষ্ঠান আয়োজকদের বিরুদ্ধে নানা ধরনের অভিযোগ উঠছে। এই পরিস্থিতিতে বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তার দাবি, “কেকে-কে চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটা হত্যা। অপরাধবোধ থেকেই গান স্যালুট দিয়েছে সরকার।”

বৃহস্পতিবার সকালে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে রাজ্য প্রশাসনকে নিশানা করেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “একটা লোককে হত্যা করা হল। অমিত শাহ বলেছিলেন, বাংলায় গেলে মারা যেতে পারেন। বাংলায় এসে লোকটা বেঘোরে মারা গেলেন। এটা কলেজের অনুষ্ঠান নয়, তৃণমূল পার্টির অনুষ্ঠান। ওরা লোক জড়ো করেছে। নেতারা আয়োজন করেছেন। ওকে দিয়ে জোর করে একের পর এক গান গাইয়েছে। উনি পারছিলেন না। চলে যেতে চাইছিলেন। চক্রান্ত করে মেরে ফেলা হয়েছে। এটা হত্যা।”

প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পীকে শেষশ্রদ্ধা জানাতে বুধবার গান স্যালুট দিয়েছে রাজ্য সরকার। শ্রদ্ধা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী-সহ অন্যান্য মন্ত্রীরা। সরকারের এই পদক্ষেপেরও সমালোচনা করেছেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “যে অপরাধবোধ তৈরি হয়েছে, তা ঢাকা দিতে গান স্যালুট দেওয়া হয়েছে। আর তার মৃতদেহ চুরি করার অভ্যাস রয়েছে।”

অসুস্থ হওয়ার পরেও হাসপাতালে না নিয়ে গিয়ে, কেন কেকে’কে হোটেলে নিয়ে যাওয়া হল? সেই প্রশ্নও তুলেছেন দিলীপ ঘোষ।

যদিও কুণাল ঘোষ দাবি করেছেন, “এতজনের মধ্যে কেউ অসুস্থ হলেন না। পেশাদার শিল্পী পারফর্ম করে বেরিয়ে যাওয়ার পর অসুস্থ হয়েছেন। এটা নিয়ে কিছু রাজনৈতিক দল কুৎসা করছে। এটা তাদের রাজনৈতিক দেউলিয়াপনার উদাহরণ। মুখ্যমন্ত্রী পূর্ণ সম্মান দিয়ে কেকে-কে শেষ বিদায়ের ব্যবস্থা করেছেন।” সূত্র: জিনিউজ