গোপালগঞ্জে ইজিবাইক চালক জাহিদুল ইসলাম হত্যা মামলায় ৫জনকে মৃতূদন্ড দিয়েছে বিচারিক আদালত

46
ইজিবাইক চালক
Social Share

সুব্রত বিশ্বাস সজিব, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জে ইজিবাইক চালক জাহিদুল ইসলাম হত্যা মামলায় ৫জনকে মৃতূদন্ড দিয়েছে বিচারিক আদালত।তাদের প্রত্যেককে ৫০হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে।

অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ আব্বাস উদ্দীন আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে এ রায় দেন।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন- গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলিয়া গ্রামের খালিদ ফকির, রাজ্জাক মোল্লা, মোঃ বিপুল ফকির, কাশিয়ানী উপজেলার ব্যাসপুর গ্রামের মোঃ হাসান শেখ এবং নড়াইলের লোহাগাড়া উপজেলার চাচই গ্রামের মোঃ ফসিয়ার মোল্লা। দন্ডপ্রাপ্তরা সবাই পলাতক রয়েছে।

আদালতের এপিপি মোঃ শহিদুজ্জামান খান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

২০১৩ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জ জেলা সদরের কাঁচা বাজার এলাকা থেকে ইজিবাইক চালক জাহিদুলকে একদল লোক ভাড়া করে নিয়ে যায়।এর পর থেকে সে নিখোজ থাকে। ওই বছরের ২ অক্টোবর কাশিয়ানীর গোপালপুর গ্রামের ভুলবাড়িয়া ব্রীজের কাছ থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

নিহত জাহিদুলের পিতা সদর উপজেলার গোলাবাড়িয়া গ্রামের মোঃ নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে দুই জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।পরে চার্জসীটে আরো ৩ জনের নাম অন্তর্ভূক্ত করে মোট ৫ জনকে অভিযুক্ত করে পুলিশ আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করে।

অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোঃ আব্বাস উদ্দীন আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে এ রায় দেন।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন- গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার চন্দ্রদিঘলিয়া গ্রামের খালিদ ফকির, রাজ্জাক মোল্লা, মোঃ বিপুল ফকির, কাশিয়ানী উপজেলার ব্যাসপুর গ্রামের মোঃ হাসান শেখ এবং নড়াইলের লোহাগাড়া উপজেলার চাচই গ্রামের মোঃ ফসিয়ার মোল্লা। দন্ডপ্রাপ্তরা সবাই পলাতক রয়েছে।

আদালতের এপিপি মোঃ শহিদুজ্জামান খান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

২০১৩ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জ জেলা সদরের কাঁচা বাজার এলাকা থেকে ইজিবাইক চালক জাহিদুলকে একদল লোক ভাড়া করে নিয়ে যায়।এর পর থেকে সে নিখোজ থাকে। ওই বছরের ২ অক্টোবর কাশিয়ানীর গোপালপুর গ্রামের ভুলবাড়িয়া ব্রীজের কাছ থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

নিহত জাহিদুলের পিতা সদর উপজেলার গোলাবাড়িয়া গ্রামের মোঃ নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে দুই জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।পরে চার্জসীটে আরো ৩ জনের নাম অন্তর্ভূক্ত করে মোট ৫ জনকে অভিযুক্ত করে পুলিশ আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করে। পরে চার্জসীটে আরো ৩ জনের নাম অন্তর্ভূক্ত করে মোট ৫ জনকে অভিযুক্ত করে পুলিশ আদালতে অভিযোগ পত্র দাখিল করে।