গালবান উপত্যকা নিয়ে চীনের দাবি প্রত্যাখ্যান দিল্লীর

Social Share

লাদাখ অঞ্চলের গালবান উপত্যাকা নিয়ে চীনের দাবি ভারত অতিরঞ্জিত ও অগ্রহনযোগ্য বলে উল্লেখ করেছে।
চীন বুধবার গালবান উপত্যকা নিজেদের বলে দাবি করার পর ভারত রাতেই এই ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বিবৃতি দেয়।
চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান এক মিডিয়া ব্রিফিংয়ে বলেছেন, লাদাখ অঞ্চলের গালবান উপত্যকার মালিকানা সবসময়ই চীনের।
দুদেশের সৈন্যদের মধ্যে তীব্র সংঘর্ষের একদিন পর তিনি এ দাবি করেন।
চীনের এ দাবির তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ভারত। দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব এ দাবি খন্ডন করে তার দপ্তরের দেয়া এক বিবৃতি তুলে ধরেন।
ভারতের পররাষ্ট্র দপ্তরের ওই বিবৃতিতে লাদাখ বিষয়ে তার দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রীর ফোনালাপের প্রসঙ্গ টেনে বলা হয়, গত ৬ জুন উভয়পক্ষের সিনিয়র কমান্ডাররা সার্বিক পরিস্থিতি দায়িত্বশীল আচরণের মাধ্যমে মেকাবেলার যে সমঝোতায় পৌঁছেছিলেন তা আন্তরিকভাবে প্রয়োগ করা উচিত।
এতে আরো বলা হয়, এ সমঝোতার বিপরীতে দাঁড়িয়ে যে দাবি করা হচ্ছে তা অতিরঞ্জিত ও অসমর্থিত।
সরকারি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, গালবান উপত্যকায় সোমবার উভয় দেশের সৈন্যদের মাঝে সংঘর্ষে ২০ ভারতীয় সৈন্য নিহত ও আরো ৭৬ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে ১৮ জন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে।
এদিকে, নানা গোয়েন্দা সূত্রের উল্লেখ করে ভারতীয় সেনা কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, সংঘর্ষে ৪৩ জন চীনা সেনা হতাহত হয়েছে।
তবে, চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গতকালের মিডিয়া ব্রিফিংয়ে তাদের পক্ষে কোন সৈন্যের হতাহতের কোন সংখ্যা উল্লেখ করেননি।
এদিকে, বুধবার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী এস. জয়শংকর চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ওয়াং ই এর সঙ্গে ফোনালাপে বলেছেন, এই সহিংসতা ও হতাহতের বিষয়টি চীনের পূর্বপরিকল্পিত পদক্ষেপ।
তিনি বলেন, নজিরবিহীন এই ঘটনা দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে এবং চীনের উচিত এ ঘটনার পর্যালোচনা করে সঠিক পদক্ষেপ নেয়া।
চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে, ওয়াং এর প্রতিক্রিয়ায় বলেছেন, ভারত যেন অবশ্যই বর্তমান পরিস্থিতির ভুল বিচার না করে এবং চীন যে তার আঞ্চলিক সার্বভৌমত্ব রক্ষায় দৃঢ় প্রতিজ্ঞ সে বিষয়টিকেও যেন খাটো করে না দেখে।
ওয়াং চীনের অভিযোগ পুর্নব্যক্ত করে বলেছেন, ভারতীয় সৈন্যরা গত ১৫ জুন নিয়ন্ত্রণ রেখা পাড়ি দিয়ে সংঘর্ষকে উস্কে দিয়েছে।
তিনি আরো বলেছেন, ভারতকে তার সৈন্যদের এই পদক্ষেপের বিষয়টি অবশ্যই খতিয়ে দেখতে হবে।