গবাদিপশুর COVID-19 হয় না: ড. মো আওলাদ  হোসেন

Social Share

এ বিশ্বে অসংখ্য প্রজাতির ভাইরাস বিদ্যমান রয়েছে যা মানুষ ও প্রাণীকূলে নানা রোগ সৃষ্টি করে। ভাইরাসের অনেকগুলো ফ্যামিলি বা গোষ্ঠির মধ্যে একটির নাম ‘করোনা’। সম্প্রতি Novel Corona Virus (SARS COV-2) দ্বারা মানবদেহে COVID-19 রোগটি সৃষ্টি হয়েছে। ইতিপূর্বে আরও দুই ধরনের করোনা ভাইরাস মানুষের দেহে রোগ সৃষ্টি করেছিল। এর একটি হলো MERS COV যেটি এসেছিল এক প্রজাতির উট থেকে। আরেকটি হলো SARS COV যেটি Civet cat নামক এক ধরনের বন্যপ্রাণী থেকে এসেছিল।

করোনা পরিবারের আরও অনেক প্রজাতির ভাইরাস আছে যেগুলো প্রাণিরদেহে রোগব্যাধি সৃষ্টি করে থাকে। যেমন-‘শুকর’এর দেহে Porcine Epidemic Diarrhea (PED) Virus এবং Transmissible Gastroenteritis (TGE) Virus, বিড়ালের দেহে Feline Infectious Peritonitis (FIP) Virus রোগ সৃষ্টি করে। এসবই বিভিন্ন প্রজাতির করোনা ভাইরাস। এসব ভাইরাস মানুষকে আক্রান্ত করতে সক্ষম নয়। যেমন-গরুতে bovine corona virus পাওয়া যায়, যা গবাদিপশুর ক্ষেত্রে সাধারণ ডায়রিয়া ঘটায় সেটি কখনোই মানুষের ভিতর কোন রোগ সৃষ্টি করতে পারেনা। গরুর খামারীরা দীর্ঘদিন যাবত এই করোনা ভাইরাসের সাথে অবস্থান করছেন, কিন্তু তাদের bovine corona virus দ্বারা ডায়রিয়ার মত কোন রোগবালাই এর লক্ষণ দেখা যায়নি।
মানবদেহে বা গবাদিপশুতে করোনা ভাইরাসের প্রতিটি প্রজাতি নিজ নিজ নির্দিষ্ট চরিত্র অনুযায়ী সংক্রমণ করে থাকে। কারণ প্রতি প্রজাতি ভাইরাসের গায়ে নির্দিষ্ট ধরনের অনুবিক্ষণিক স্পাইক (molecular spike) থাকে। রোগ সংক্রমণ করার সময় এই ভাইরাসগুলো মানুষ বা প্রাণির শরীরের সুনির্দিষ্ট অঙ্গের সুনির্দিষ্ট অংশের কোষের সাথে সংযুক্ত হয়ে সংক্রমণ করে থাকে।
মানুষ বা প্রাণিভেদে শরীরের বিভিন্ন অংশের উপরিভাগের কোষগুলো বিভিন্ন রকম। যেমন- পরিপাকনালীর গায়ের কোষ শ্বাসনালীর গায়ের কোষের চেয়ে ভিন্ন। এ কারণেই বিভিন্ন প্রজাতির করোনা ভাইরাস বিভিন্ন প্রাণীর বিভিন্ন অঙ্গে সংক্রমণ করে ভিন্ন ভিন্ন রোগ সৃষ্টি করে। যেমন, গরুতে bovine corona virus পরিপাক প্রণালীতে সংক্রমণ করে ডায়ারিয়া সৃষ্টি করে। আর SARS COV-2 ভাইরাসটি মানবদেহের ফুসফুসে সংক্রমণ করে। মানুষ শ্বাসক্রিয়ার মাধ্যমে বাতাস থেকে অক্সিজেন গ্রহণ করে। ফুসফুস কোষের ACE2 (Angiotensin-converting enzyme) নামক রিসেপটরটি বাতাসের অক্সিজেনের অণুটি (molecule) নিয়ে রক্তের সাথে মিশিয়ে দেয়। এই অক্সিজেন রক্ত প্রবাহের মাধ্যমে শরীরের বিভিন্ন অংশে পৌঁছে যায়, শরীরের কোষগুলোকে বাঁচিয়ে রাখে, মানুষটি বেঁচে থাকে। কিন্তু  SAR COV-2 (COVID-19) ভাইরাস মানুষের মুখ ও নাকের মাধ্যমে ফুসফুসে প্রবেশ করে ACE2 রিসেপ্টরের সাথে সংযুক্ত হয়। ফলে ঐ রিসেপ্টরগুলো তাদের সুনির্দিষ্ট কাজটি (ফুসফুসের বাতাস থেকে অক্সিজেন নিয়ে রক্তে মিশিয়ে দেওয়া) করতে পারে না বিধায় রক্তে অক্সিজেনের ঘনত্ব ধীরে ধীরে কমতে থাকে। কিন্তু মানুষের পরিপাকনালীর গায়ে ACE2  রিসেপ্টর নাই। COVID-19 পজিটিভ রোগীরা গরম পানি খেয়ে বা গরম পানি দিয়ে গড়গড়া করে শ্বাসনালীর মুখে জমাকৃত ভাইরাসসহ গিলে ফেললেও ভাইরাসটি পরিপাকনালীর কোথাও একই ধরনের রিসেপ্টর না থাকায় সংযুক্ত হতে পারে না। ফলে সংক্রমণ হয় না।
আরও লক্ষ করা যায় যে, এক প্রজাতির করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রস্তুতকৃত Vaccine ব্যবহার করে অন্য প্রজাতির করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব নয়। ফলে বিশ্বে বিভিন্ন প্রজাতির করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে অসংখ্য vaccine থাকা সত্বেও সারা বিশ্বে মহামারী আকারে সংক্রমিত COVID-19 নিয়ন্ত্রণে এগুলো কোন কাজে আসছে না।
WHO (বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা)-এর ওয়েবসাইটে স্পষ্ট বলা আছে এখন পর্যন্ত গবাদিপশু, পোষা কুকুর- বিড়াল হতে এই নভেল করোনার (SARS COV-2) জীবাণু মানুষে ছড়ানোর কোন প্রমান পাওয়া যায়নি। Kansas State University Veterinary Diagnostic Laboratory-এর পরিচালক বলেছেন,  “আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি, বর্তমানে মানবদেহে সংক্রমণকারী SARS COV-2 এর সাথে গবাদিপশুর দেহের করোনা ভাইরাসের কোন সম্পর্ক নাই। গবাদিপশু COVID-19 এর জীবাণু বহন করে না এবং গবাদিপশু এই রোগ ছড়ানোর বাহক হিসাবেও কাজ করে না” (A growing chorus of veterinary experts is pointing out that while multiple species-specific coronaviruses affect livestock and poultry, there is no evidence that the currently circulating novel SARS-CoV-2 coronavirus, which causes COVID-19, causes disease in livestock and poultry.) (Tim Lundeen | Mar 27, 2020).
Health organizations from the AVMA to the CDC to the World Organisation for Animal Health (OIE) একই কথা বলছে। তাদের মতে- ‘There is no evidence to suggest that animals infected by humans are playing a role in the spread of COVID-19, and the human outbreak is being driven by person-to-person contact. However, these health organizations do recommend, out of an abundance of caution, that people ill with the coronavirus limit contact with animals.’
সারাবিশ্বে মানবদেহে SARS COV-2 ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হয়ে COVID-19 রোগ সৃষ্টি হওয়ার পর থেকে এ বিষয়ে যত গবেষণা হয়েছে, তন্মধ্যে গবাদিপশু সম্পর্কিত উল্লেখযোগ্য গবেষণাপত্র পর্যালোচনা করে প্রাপ্ত তথ্যাদির ভিত্তিতে আপাতত প্রতিয়মান হওয়া যায় যে, করোনা ভাইরাসের প্রতিটি প্রজাতি নিজ নিজ নির্দিষ্ট চরিত্র অনুযায়ী সংক্রমণ  ঘটিয়ে  থাকে। গরুর দেহে রোগসৃষ্টিকারী bovine corona virus মানবদেহে সংক্রমিত হয় না। আবার মানবদেহের SARS COV-2 ভাইরাস গবাদিপশুর দেহে COVID-19 রোগ সৃষ্টি করে না।
তবে WHO এবং অন্যান্যরা COVID-19 বিষয় সম্পর্কে সর্বশেষ গবেষণা-নিরীক্ষণ অব্যাহত রেখেছে।
লেখক: ভেটেরিনারীয়ান, পরিবেশবিদ, রাজনৈতিক কর্মী।