ক্রাইস্টচার্চ হামলাকারী নিয়ে নিউজিল্যান্ড পুলিশের চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ

2
Social Share

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে হামলাকারী টেরেন্ট সম্পর্কে একাধিক তথ্য অনুসন্ধানে নেমেছিল নিউজিল্যান্ডের পুলিশ। তারা জানায়,গত বছর ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে হামলাকারী ব্রেন্টন টেরেন্ট মুসলিম সম্প্রদায়ের উপর ক্ষোভ থেকেই সেই ভয়ানক হামলা চালিয়েছিল।

পুলিশ জানিয়েছে, ৩০ বছর বয়সী টেরেন্ট জিমে প্রশিক্ষক হিসাবে কাজ করতেন। ২০১২ সালে চোট লাগার পর সেই চাকরি তিনি ছেড়ে দেন। তার পর আর তিনি কোনও কাজ করেননি। ২০১৪ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত বিশ্বের বহু দেশে ঘুরে বেড়িয়েছে টেরেন্ট। একটা সময় ভারতে এসেছিলেন এবং তিন মাস ভারতেই ছিলেন। ১৮ মাস ধরে খোঁজ-খবর, তদন্ত করে একের পর এক তথ্য বের করেছে পুলিশ।

তবে পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়, টেরেন্ট কোনও জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিল না। শুধুমাত্র মুসলিম সম্প্রদায়ের উপর ক্ষোভ থেকেই সেই ভয়ানক হামলা চালিয়েছিল সে। তার জন্য নিজের উদ্যোগে ট্রেনিং নিয়েছিল টেরেন্ট।

মোট ৫১ জন সেই হামলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন। ১৫ মার্চ ২০১৯ ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে ভয়াবহ হামলা করেছিল টেরেন্ট। সেই হামলার ফেসবুক লাইভ করেছিল সে। এমনকি ধরা পড়ার পর সেই ভয়াবহ হামলা নিয়ে তাঁর বিন্দুমাত্র অনুশোচনা ছিল না তার।

মসজিদে নামাজ আদায় করতে আসা মুসলিমদের উপর নির্বিচারে গুলি চালিয়েছিলেন টেরেন্ট। সেই সময় নিউজিল্যান্ডে সিরিজ খেলতে গিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। অল্পের জন্য সেই হামলা থেকে রক্ষা পান বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। বহু মানুষ এই হামলায় গুরুতর আহত হয়েছিলেন। বিবিসি। দি গার্ডিয়ান।