কোকোকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে- অভিযোগ ফখরুলের

47
Social Share

আরাফাত রহমান কোকোকে হত্যা করা হয়েছে। মঈন উদ্দিন-ফখরুদ্দিন সরকারের সময় তাঁকে নির্মমভাবে নির্যাতন করা হয়। সেই নির্যাতনের পর মালয়েশিয়ায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।’

জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আজ রবিবার (২৪ জানুয়ারি) সকালে বনানী কবরস্থানে তাঁর কবর জিয়ারতের পর সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আরাফাত রহমান কোকো কোনো রাজনৈতিক ব্যক্তি ছিলেন না। তিনি কখনো রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে অংশ নেননি। তিনি ছিলেন একজন ক্রীড়ানুরাগী, ক্রীড়া সংগঠক। অতি অল্প সময়ে তিনি ক্রীড়াঙ্গনে বিভিন্ন কাজের মধ্য দিয়ে জনপ্রিয় সংগঠক হিসেবে নিজেকে পরিচিত করেছিলেন।’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘আরাফাত রহমান কোকোকে হত্যা করা হয়েছে। মইন উদ্দিন-ফখরুদ্দিন সরকারের সময় নির্মমভাবে তাকে নির্যাতন করা হয়েছিল। সেই নির্যাতনের ফলে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তিনি মালয়েশিয়ায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।’

কবর জিয়ারত ও ফাতিহা পাঠের সময় মির্জা ফখরুলের সঙ্গে ছিলেন, বিএনপির ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক, নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট রফিক শিকদার, মহানগর উত্তর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি মুনসী বজলুল বাসিত আনজু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম নকি, মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশার, যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দীন টুকু প্রমুখ।