কোটালীপাড়ায় সার বিক্রিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত-১০, আটক-২

30
Social Share

সুব্রত বিশ্বাস সজিব, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় সার বিক্রিকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ১০জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার(২৭) রাতে উপজেলার রামশীল ইউনিয়নের খাগবাড়ি গ্রামের বিষ্ণু মন্দিরের সামনের বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, খাগবাড়ি গ্রামের  বাজারে হারিদাস বিশ্বাস ও প্রশান্ত সরকার নামে দু’ব্যবসায়ী সার ও কীটনাশকের ব্যবসা করছেন।ঘটনার দিন রাতে সার বিক্রি নিয়ে এ দুই ব্যবসায়ীর মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হরিদাস বিশ্বাস লোকজন নিয়ে প্রশান্ত সরকারের উপর হামলা চালায়। এ হামলার পর উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১০জন আহত হয়। এদের মধ্যে গুরুতর আহত প্রশান্ত সরকার (৪০), বিরেন সরকার(৭৫), সুশান্ত সরকার(৩৫)ও সঞ্জিত বিশ্বাস (২৬) কে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। প্রশান্ত সরকার বলেন, হরিদাস বিশ্বাস লাইসেন্স বিহীন ভাবে দীর্ঘদিন ধরে সার বিক্রি করে আসছে। এ বিষয়ে কৃষি অফিসের লোকজন গিয়ে তাকে সার বিক্রি করতে নিষেধ করে। হরিদাস বিশ্বাসের ধারণা যে আমি খবর দিয়ে কৃষি অফিসের লোকজন এনেছি। তাই সে ক্ষিপ্ত হয়ে লোকজন নিয়ে আমার উপর হামলা চালিয়েছে। এ বিষয়ে হরিদাস বিশ্বাসের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি কোন প্রকার মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সুশান্ত মধু বলেন, সার বিক্রির জন্য হরিদাস বিশ্বাসের কোন লাইসেন্স নেই। সে অবৈধ ভাবে দীর্ঘদিন ধরে খাগবাড়ি গ্রামের বিষ্ণু মন্দিরের সামনের বাজারে সার বিক্রি করে আসছিল। এ বিষয়ে একাধিকবার তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তারপরও তিনি এ বাজারে অবৈধ ভাবে সার বিক্রি করেন। আগামীতে তার বিরুদ্ধে আইনগত ভাবে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান বলেন, প্রশান্ত সরকারকে মারধরের ঘটনায় থানায় একটি মামলা হয়েছে। আমরা দুইজনকে আটক করে কোর্টে চালান করেছি। বর্তামানে এলাকায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে।