কৃষিতে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষার কার্যক্রম চূড়ান্ত

33
Social Share

কৃষি বিজ্ঞান বিষয়ে ডিগ্রি প্রদানকারী সাতটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ পদ্ধতিতে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের সকল প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। এমসিকিউ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৩১ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে।

সোমবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর ও কেন্দ্রীয় ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মো. গিয়াসউদ্দীন মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভর্তি কমিটির অনলাইন সভায় এসব বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক ভর্তির আবেদন গ্রহণ শুরু হবে ২ মে। শেষ হবে ১০ জুন ২০২১। এমসিকিউ পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষা আগামী ৩১ জুলাই শনিবার বেলা সাড়ে ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। ভর্তির ফলাফল প্রকাশ হবে ৫ আগস্ট। ভর্তির আবেদনের তারিখসহ ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জাতীয় দৈনিক পত্রিকা ও বিশ্ববিদ্যালয়সমূহের ওয়েবসাইটে (www.bsmrau.edu.bd) পাওয়া যাবে।

অনলাইনের এ সভায় বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান, শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. শহীদুর রশীদ ভূইয়া, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. মতিয়ার রহমান হাওলাদার, খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. শহীদুর রহমান খান এবং পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. স্বদেশ চন্দ্র সামন্ত জুম মিটিংয়ের মাধ্যমে যুক্ত ছিলেন।

এছাড়া আরো যুক্ত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর তোফায়েল আহমেদ, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ম্যানেজমেন্ট বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ জামিনুুর রহমান, বশেমুরকৃবি’র রেজিস্ট্রার মো. সিরাজুল ইসলাম তালুকদার, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটি বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ড. মো. আলী আশরাফ, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ম্যাথমেটিক্স বিভাগের প্রফেসর মো. মুস্তাগিজ বিল্লাহ, শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এগ্রিকালচারাল বোটানি বিভাগের প্রফেসর এ. এম. এম. শামসুজ্জামান এবং বশেমুরকৃবি’র আইটি বিশেষজ্ঞ মুহাম্মদ আকরাম হোসেন প্রমুখ।