কারিনার ছেড়ে দেওয়া ছবি পেয়ে সুপারস্টার হয়েছেন যারা

44
Social Share

কারিনা কাপুর খান। প্রচুর সাফল্য, হাজার আলোর ঝলকানি, বলিউডে সাফল্য, সবধরনের ছবিতে অভিনেতা হিসাবে সফল। তবু তার ক্যারিয়ারে এমন কিছু ছবির অফার তিনি ফেরত দিয়েছেন, যার তালিকা দেখলে মনে হবে, সেই অফারে রাজি হলে তার ক্যারিয়ারগ্রাফ এমন জায়গায় পৌঁছাত যে বাকিরা অনেক পিছনে পড়ে থাকত। অন্যদিকে, সেই ছবিগুলো করতে রাজি হওয়াতেই একের পর এক নায়িকা সুপারহিটের তকমা পেয়েছেন।

কারিনার সব থেকে প্রিয়, কাছের বন্ধু, পরিচালক করন জোহর কারিনাকে ভেবেই ‘কাল হো না হো’ ছবির নয়না চরিত্রটি লিখেছিলেন। শেষ মুহূর্তে সেই ছবি থেকে বেরিয়ে যান কারিনা। বেশ অনেকদিন দুজনে দুজনের সঙ্গে কথা বলতেন না। করনের বাবা যশ জোহরের মৃত্যুর পর অভিমান ভাঙে। করনের কাছে গিয়ে ক্ষমা চান কারিনা। ততদিনে প্রীতি জিনতা ‘নয়না’ চরিত্রে অভিনয় করে শাহরুখ আর সাইফকে নিয়ে সুপার-ডুপার হিট।

পরিচালক মধুর ভান্ডারকারের ‘ফ্যাশন’ ছবিটির চিত্রনাট্য যে কেন কারিনা ফেরত পাঠিয়েছিলেন, তা স্বাভাবিক বুদ্ধিতে বোঝা মুশকিল। একটা কারণ হতে পারে যে, কঙ্গনার সঙ্গে দুই নায়িকা চরিত্র তিনি করতে চাননি। অথচ, তার ছেড়ে দেওয়া ছবিতে অভিনয় করে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জাতীয় পুরস্কার জিতেছিলেন। কঙ্গনার ঝুলিতেও আসে তার প্রথম জাতীয় পুরস্কার। অথচ মধুরের পরের ছবি ‘হিরোইন’য়ে অভিনয় করেন কারিনা।

সঞ্জয় লীলা বানশালির ছবিতে অভিনয় করার জন্য মুখিয়ে থাকেন যে কোনও অভিনেতা। সেই পরিচালকের ‘ব্ল্যাক’ ছবির জন্য প্রথম পছন্দ ছিলেন কারিনা কাপুর। কিন্তু কারিনার ছবির চরিত্র পছন্দ হয়নি। আবারও সেই ছবির ‘মিশেল ম্যাকনেলি’ চরিত্র করে রানি মুখার্জি পান সেই বছরের প্রায় সব পুরস্কার।

হৃতিক রোশনের সঙ্গে ‘কাহো না পেয়ার হ্যায়’ ছবিতেই অভিষেক হতে পারত কারিনা কাপুরের, যদি তিনি রাকেশ রোশনের অফারে রাজি হতেন। তার পরিবর্তে জে পি দত্ত-এর ছবি ‘রিফিউজি’তে অভিষেক বচ্চনের নায়িকা হিসেবে ডেবিউ হল তার। আমিশা প্যাটেল তখন গোটা দেশের হার্টথ্রব।

ঐশ্বরিয়া রাই যে ‘হাম দিল দে চুকে সানাম’ ছবির প্রথম পছন্দ ছিলেন না, তা কে জানত! বলিউডজুড়ে এমনই খবর ছিল যে সালমান-ঐশ্বরিয়ার ব্যক্তিগত জীবনের রসায়ন পর্দায় ধরতে চেয়েছিলেন পরিচালক। কিন্তু ভিতরের গল্প অন্য। এই চরিত্রের জন্য পরিচালকের প্রথম পছন্দ ছিলেন কারিনাই। তিনি রাজি হননি। তাই অফার যায় ঐশ্বর্যার কাছে। আর তারপর ঐশ্বরিয়ার বলিউড কেরিয়ারগ্রাফ ঐতিহাসিক হয়ে ওঠে।

বারে বারে তিন বার। আবারও বানশালি চিত্রনাট্য পড়ে শোনালেন কারিনাকে। এবারের ছবি ‘গালিয়োঁ কা লীলা-রামলীলা’। এবারও বরফ গলল না। চিত্রনাট্যে নাকি এমন কিছু পাননি কারিনা, যা অসাধারণ, তাই তিনি ফিরিয়ে দেন বানশালিকে। তার জায়গায় এলেন দীপিকা পাড়ুকোন। বাকিটা ইতিহাস।

এমন একটা সময়ে ‘কুইন’ তৈরি হল, যখন বলিউড নায়িকাকেন্দ্রিক ছবি বানানোর পথে হাঁটছে। নায়িকারাও নিজেদের এলেমে বড় নামের নায়ক ছাড়া ১০০ কোটির ব্যবসা দিতে পারছেন বক্স অফিসে। সেই সময়ে বিকাশ বহেলের এই ছবির অফার ফেরত দিয়েছিলেন কারিনা। অনেকদিন বলিউডে কাজ না পাওয়া কঙ্গনার কাছে এই ছবি প্রাইজড পজিশন হয়ে আসে। কঙ্গনাও রাতারাতি সুপারস্টার। সূত্র: জিনিউজ