কাদের মির্জাকে অব্যাহতি ও বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার

37
Social Share

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে আনীত জেলা আওয়ামী লীগের অব্যাহতি ও কেন্দ্রের কাছে বহিষ্কারের সুপারিশ ২ ঘণ্টার মধ্যেই স্থগিত এবং প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে।

আজ শনিবার তাকে দল থেকে চূড়ান্ত বহিষ্কারের জন্য কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কাছে সুপারিশ এবং দলীয় সব কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারির ২ ঘণ্টার মধ্যেই সেটি প্রত্যাহার করে নেয় নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুল আনম চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, সুপারিশের দুই ঘণ্টার মধ্যে আমরা তা প্রত্যাহার করে নিয়েছি।

তবে এ প্রসঙ্গে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী কথা বললে তিনি এ প্রসঙ্গে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এর আগে নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ এএইচএম খায়রুল আনম চৌধুলী সেলিম এবং সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ সুপারিশ করা হয়।

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে, বিগত কয়েক সপ্তাহ থেকে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা দলীয় নেতা ও কর্মীদের ওপর সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে গুরুতরভাবে আহত করায় এবং আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতাদের সম্পর্কে মিথ্যা, অশালীন বক্তব্য ও আপত্তিজনক উক্তি বিভিন্ন সভা-সমাবেশে এবং ফেসবুক লাইভে এসে সংগঠনবিরোধী অশোভনীয় মন্তব্য ও নেতা এবং কর্মীদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে আবদুল কাদের মির্জাকে সংগঠনের সব কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি দেওয়া হলো।

সংগঠন বিরোধী উল্লেখিত কারণ ও দলীয় গঠনতন্ত্র পরিপন্থী কাজে জড়িত থাকার অভিযোগে আবদুল কাদের মির্জাকে দলের প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে চূড়ান্তভাবে বহিষ্কারের করার জন্য আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা ও কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের কাছে সুপারিশ পেশ করা হয়েছে।