কলকাতায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব উদ্বোধন

26
Social Share

চলচ্চিত্র মানুষের গভীর অনুভবকে স্পর্শ করে এবং মনে স্থায়ী ছাপ ফেলে। সে কারণে এটি মানুষে মানুষে যোগাযোগ গড়ে তুলতে অনন্য ভূমিকা রাখতে সক্ষম। কলকাতায় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব দুই বাংলার নৈকট্য আরো গভীর করতে অবদান রাখবে।

ভারতের কলকাতায় গতকাল শুক্রবার সপ্তাহব্যাপী বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসব উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন। নিয়মিত বার্ষিক উদ্যোগের অংশ হিসেবে কলকাতার রবীন্দ্র সদনের নন্দন-১ হলে এই উৎসবের উদ্বোধন হয়। উৎসব চলবে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

পশ্চিমবঙ্গের বিজ্ঞান প্রযুক্তি ও জৈবপ্রযুক্তি মন্ত্রী ব্রাত্য বসু ও ভারতের বিদেশসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোহাম্মদ ইমরান ও চলচ্চিত্র পরিচালক গৌতম ঘোষ অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। এ ছাড়া কলকাতায় বাংলাদেশের উপহাইকমিশনার তৌফিক হাসানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন প্রথম সচিব প্রেস ড. মো. মোফাকখারুল ইকবাল।

ব্রাত্য বসু  বলেন, সমাজে উন্নয়নের জন্য শিল্প ও সাহিত্যের সঙ্গে রাজনীতি আনা ঠিক নয়। বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গ তথা সারা বিশ্বে এক অনন্য সম্পদ বাংলাদেশের জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান।

এ বছরকে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ, বাংলাদেশের স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর এবং ভারত-বাংলাদেশ কূটনৈতিক সম্পর্কেরও পঞ্চাশ বছর হিসেবে বর্ণনা করেন হর্ষবর্ধন শ্রিংলা।

তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাইমুম সারোয়ার কমল, বিএফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুজহাত ইয়াসমিন, চিত্রতারকা জয়া আহসান, সৃজিত প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। উৎসবে ৩২টি চলচ্চিত্রের মধ্যে উদ্বোধনী সন্ধ্যায় প্রদর্শিত হয় ‘হাসিনা : আ ডটারস টেল’।

এদিকে আজ শনিবার কলকাতার ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে বঙ্গবন্ধুর দেওয়া ভাষণের ৪৯ বছর পূর্তি উপলক্ষে সেখানে যাচ্ছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।