কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশনে বিক্ষোভে হিন্দু সংহতির ৯৪ নেতাকর্মী আটক

69
Social Share

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের কাছে বিক্ষোভের সময় হিন্দু সংহতি নামে একটি সংগঠনের ৯৪ নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। বুধবার (২০ অক্টোবর) বাংলাদেশের কুমিল্লাসহ বিভিন্ন অঞ্চলে মন্দির, মণ্ডপ ও মূর্তি ভাঙচুর, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ঘরবাড়ি ও দোকানপাটে হামলার প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ হয়। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের

জানা গেছে, ওই বিক্ষোভের আয়োজক ছিল প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক ছাত্রছাত্রী ফেডারেশন বা পিডিএসএফ ও হিন্দু সংহতি। বুধবার দুপুরে হিন্দু সংহতি বাংলাদেশ উপহাইকমিশন দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা দিয়েছিল। সেই লক্ষ্যে হিন্দু সংহতির পৃথক দুটি মিছিল উপহাইকমিশনের দিকে এগোনোর উদ্যোগ নেয়। একটি মিছিলের অংশগ্রহণকারীরা শিয়ালদহ স্টেশনে এসে কলকাতার বেকবাগান থেকে উপহাইকমিশনের দিকে এগোতে চাইলে সেখানেই পুলিশ তাদের আটক করে। এরপর পুলিশ হেডকোয়ার্টার লালবাজারে নিয়ে যায়। এখানে আরও ৪৩ জনকে আটক করা হয়। অন্যদিকে দ্বিতীয় মিছিলটি বেকবাগান থেকে উপহাইকমিশন দপ্তরের দিকে এগোতে চাইলে পুলিশ তাদের বেকবাগানেই আটকে দেয়। এ সময় বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে এগোতে চাইলে পুলিশ ৫১ জন বিক্ষোভকারীকে আটক করে লালবাজারে নিয়ে যায়।

বুধবার বিকেলে প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক ছাত্রছাত্রী ফেডারেশন বা পিডিএসএফ বাংলাদেশ উপহাইকমিশন অভিযানের ডাক দিলেও পুলিশ বেকবাগান মোড়ে তাদের আটকে দেয়। এরপরে এখানে পিডিএসএফ একটি পথনাটিকা মঞ্চস্থ করে। ওই পথনাটিকায় উঠে আসে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের নানা খণ্ডচিত্র। এরপর পিডিএসএফের একটি প্রতিনিধিদল উপহাইকমিশনে গিয়ে একটি স্মারকলিপি দেয়। সেখানে তারা অবিলম্বে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ করার দাবি করে।