করোনার ভ্যাকসিন তৈরির জন্য ৩,৩০০ কোটি টাকা দান করলেন ভারতীয় শিল্পপতি লক্ষ্মী মিত্তল

Social Share

মুম্বাই: সারা বিশ্বে থাবা বসিয়েছে মারণ করোনা ভাইরাস। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এই কঠিন পরিস্থিতিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা করোনার ভ্যাকসিন তৈরির জন্য দিনরাত কাজ করে চলেছেন। এবার করোনার ভ্যাকসিন তৈরির জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন ভারতীয় ব্যবসায়ী লক্ষ্মী মিত্তল। ভ্যাকসিন তৈরির জন্য ৩৩০০ কোটি টাকা দান করলেন তিনি।

তবে এই প্রথম নয়, এর আগে করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ‘পিএম-কেয়ার্স’ ফান্ডে ১০০ কোটি টাকা দান করেছিলেন ইস্পাত ব্যবসায়ী লক্ষ্মী মিত্তল। এবার ভ্যাকসিন তৈরির জন্য ৩৩০০ কোটি টাকা তিনি দিয়েছেন অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ভ্যাকসিনোলজি বিভাগকে। এই বিভাগটি জেনার ইনস্টিটিউটের অন্তর্গত।

জানা গিয়েছে, লক্ষ্মী মিত্তলের এই বিপুল অনুদানের পর ইনস্টিটিউটের নামও পালটে দেওয়া হয়েছে। নতুন নাম রাখা হয়েছে লক্ষ্মী মিত্তল অ্যান্ড ফ্যামিলি প্রফেসরশিপ অফ ভ্যাকসিনোলজি।

উল্লেখ্য, ২০০৫ সালে অক্সফোর্ড ও ইউকে ইনস্টিটিউট ফর অ্যানিম্যাল হেলথের যৌথ অংশীদারিতে তৈরি হয়েছিল জেনার ইনস্টিটিউট। বর্তমানে ভ্যাকসিন তৈরির দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও তাঁকিয়ে আছে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের দিকেই। এই ভ্যাকসিন যাতে দ্রুত বাজারে আসে, তার জন্যেই এই বিপুল অনুদান দিলেন লক্ষ্মী মিত্তল।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের করোনার ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের চূড়ান্ত পর্বে রয়েছে। করোনা ভাইরাসকে ধ্বংস করতে এই ভ্যাকসিন কতটা কার্যকরী, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে ট্রায়াল সফল হলে ২০২১ সালের প্রথমের দিকে এই ভ্যাকসিন বাজারে আসবে বলে জানা গিয়েছে।