কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম জন্মবার্ষিকী আজ : নানা আয়োজন

81
কবিগুরু
Social Share

বাঙালির বড় আপনজন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। জাতীয় সংকটে, ব্যক্তির বিপন্নতায়, উৎসবে, প্রতিটি আয়োজনে আমরা তাঁর বিপুল রচনায়, সৃষ্টিকর্মে নির্ভরতা খুঁজি। বৈরিতা অতিক্রম করে সুন্দরের দুয়ার খুলে নতুন করে চলতে শিখি। ফলে প্রতিবছরই কবিগুরুর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো নানা আয়োজন-উৎসবে মেতে ওঠে।

সরকারিভাবেও জাতীয় পর্যায়ে পালন করা হয় রবীন্দ্র জন্মবার্ষিকী। কিন্তু গত দুই বছর বিশ্বজুড়ে অতিমারি করোনার
তাণ্ডবে নানা রকম বিধি-নিষেধের ফলে জাতীয় পর্যায়ে আয়োজন করা  হয়নি কোনো উৎসব। এবার মহামারি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে থাকায় আবারও জাতীয় পর্যায়ে উৎসব উদযাপনের সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।  

আজ রবিবার ২৫শে বৈশাখ। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম জন্মবার্ষিকী। বিশ্বদরবারে বাংলা সাহিত্যকে অন্যতম মর্যাদার আসনে বসিয়েছেন তিনি। তাঁর লেখায় বাংলার রূপ-রস, বাংলার মাটি-মানুষ বড় আপন করে জড়িয়ে আছে। তাঁর গল্প, উপন্যাস, কবিতা, সংগীত, প্রবন্ধ দেড় শ বছর পরও ঘোরগ্রস্ত করে রেখেছে আমাদের।

নতুন বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে মানুষের টিকে থাকার লড়াইটা এখন আরো কঠিন হয়ে পড়েছে। বিশ্বজুড়ে নানা ধরনের জাতিদ্বন্দ্ব, হানাহানি, মানুষে মানুষে বৈরিতা বেড়েই চলেছে। এসবকে মাথায় রেখেই এবার রবীন্দ্রজন্মবার্ষিকী উদযাপনের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘মানবতার সংকট ও রবীন্দ্রনাথ’।

জাতীয় পর্যায়ে এবার কবিগুরুর জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সরকার। সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এ বছর জন্মবার্ষিকীর মূল অনুষ্ঠান হবে রবীন্দ্রস্মৃতিবিজড়িত কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার শিলাইদহের রবীন্দ্র কুঠিবাড়িতে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেন রিমি। স্বাগত বক্তব্য দেবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবুল মনসুর। স্মারক বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন প্রফেসর সনৎ কুমার সাহা। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করবেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানটি শুরু হবে আজ দুপুর আড়াইটায়।

বিশ্বকবির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, চিত্রশিল্প প্রদর্শনী ও কবির ওপর নির্মিত তথ্যচিত্র প্রচারের উদ্যোগ নিয়েছে। আজ সন্ধ্যা ৭টায় সেগুনবাগিচায় জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে রয়েছে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। একই সঙ্গে শিলাইদহ, শাহজাদপুর, পতিসর, দক্ষিণডিহি ও পিঠাভোগে ‘রং-তুলিতে বিশ্বকবি’ শিরোনামে আর্ট ক্যাম্পের আয়োজন করেছে তারা। জাতীয় চিত্রশালার ৩ নম্বর গ্যালারিতে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আঁকা এবং রবীন্দ্রনাথকে নিয়ে আঁকা চিত্রকর্মের প্রদর্শনী চলবে আগামী ২২ মে পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা এবং শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনী সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে আজ সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে আলোচনাসভা, প্রবন্ধ পাঠ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। ‘মানবতার সংকট ও রবীন্দ্রনাথ’ প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে এ আলোচনাসভায় বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ভীষ্মদেব চৌধুরী মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন। এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংগীত বিভাগ ও নৃত্যকলা বিভাগের যৌথ উদ্যোগে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হবে।

বিশ্বকবির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আগামীকাল (২৬ বৈশাখ) সকাল ১১টায় একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে একক বক্তৃতা, রবীন্দ্র পুরস্কার ২০২২ প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। বাংলা একাডেমির সভাপতি সেলিনা হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে একক বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক সাধন ঘোষ। স্বাগত ভাষণ দেবেন একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। অন্যদিকে আজ সন্ধ্যা ৬টায় কবি নজরুল ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে রবীন্দ্র সরোবরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করবেন ইনস্টিটিউটের নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ জাকীর হোসেন।

রবীন্দ্রজয়ন্তী উপলক্ষে ছায়ানট দুই দিনের রবীন্দ্র উৎসবের আয়োজন করেছে। আজ ও আগামীকাল সন্ধ্যা ৭টায় ছায়ানট মিলনায়তনে তাদের অনুষ্ঠান শুরু হবে। ছায়ানটের সাধারণ সম্পাদক লাইসা আহমদ লিসা জানান, দুই দিনের এই উৎসবে পরিবেশিত হবে একক ও সম্মেলক সংগীত, নৃত্য, পাঠ-আবৃত্তি। অনুষ্ঠানে ছায়ানটের শিল্পী ছাড়াও আমন্ত্রিত শিল্পী ও দল অংশ নেবে। অনুষ্ঠানটি সবার জন্য উন্মুক্ত।

এ ছাড়া সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর, নওগাঁর পতিসর ও খুলনার দক্ষিণডিহি ও পিঠাভোগে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় এবং স্থানীয় প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় কবির ১৬১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন করা হবে। এ উপলক্ষে স্থানীয় প্রশাসন রবীন্দ্রমেলা, রবীন্দ্রবিষয়ক আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে।

শাহজাদপুরে আজ থেকে তিন দিনের অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন সংসদ সদস্য ও অধ্যাপক মেরিনা জাহান কবিতা। জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

অন্যদিকে নওগাঁর নাগর নদীর তীরঘেঁষা রবীন্দ্রনাথের স্মৃতিজড়িত পতিসর কুঠিবাড়িতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। যশোরের সাংস্কৃতিক সংগঠন পুনশ্চর সভাপতি সুকুমার দাস জানান, যশোর টাউন হল ময়দানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তাঁরা রবীন্দ্রজয়ন্তী উদযাপন করবেন।