দ্বন্দ্ব মেটাতে শৃঙ্খলারক্ষাকারী কমিটিকে ঢেলে সাজাল কংগ্রেস

84
কংগ্রেস
Social Share

কংগ্রেস এবার দলের শৃঙ্খলারক্ষাকারী কমিটিকে ঢেলে সাজাল।  দলের মধ্যেই উঠে আসছে নানা দ্বন্দ্ব। এমনকী দলীয় শৃঙ্খলাকে অমান্য করে প্রকাশ্যেই মুখ খুলছেন কেউ কেউ। এনিয়ে দলের অভ্যন্তরের নড়বড়ে অবস্থাই ক্রমশ প্রকাশ্যে আসছিল।

মূলত সাংগঠনিক নির্বাচনের আগে দলের অভ্যন্তরে যাবতীয় দ্বন্দ্বকে মিটিয়ে ফেলতে চাইছেন কংগ্রেস হাইকমান্ড

প্রবীন কংগ্রেস নেতা একে অ্যান্টনিকে এই প্যানেলের প্রধান করা হয়েছে। এর সঙ্গেই অম্বিকা সোনি, তারিক আনোয়ার, জেপি আগরওয়াল ও জি পরমেশ্বরকে এই প্যানেলের সদস্য় হিসেবে রাখা হয়েছে।

এছাড়াও কর্ণাটকের প্রাক্তন উপমুখ্য়মন্ত্রী জি পরমেশ্বরকে কেন্দ্রীয় পদ দেওয়া হয়েছে। কারণ সেখানকার রাজ্য পার্টি আপাতত ডিকে শিবকুমার ও সিদ্ধারামাইয়ার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

তবে কংগ্রেসের একাংশের মতে, অম্বিকা সোনি নিঃসন্দেহে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর অত্যন্ত বিশ্বস্ত ব্যক্তি। এদিকে, এনসিপি ছেড়ে কয়েক বছর আগেই কংগ্রেসে এসেছিলেন তারিক আনোয়ার। তাকে বাড়তি দায়িত্ব দিয়ে কংগ্রেসের অভ্যন্তরে তার গুরুত্ব বৃদ্ধির চেষ্টা করা হয়েছে। দিল্লির প্রাক্তন পিসিসি চিফ জেপি আগরওয়ালকেও এই প্যানেলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই প্যানেল আপাতত এআইসিসি স্তরে যাবতীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ খতিয়ে দেখবে।

অন্য়দিকে, ডেটা অ্যানালিটিক্স হিসেবেও জাতীয় স্তরে সাতজনকে নিয়োজিত করা হয়েছে। সদস্যপদ সংগ্রহের নিরিখে বিপুল তথ্য জমা হচ্ছে কংগ্রেসের অন্দরে। সেসবও খতিয়ে দেখা হবে। পাশাপাশি সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অনলাইনেও কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার জন্য আহ্বান করছে দল।

দলের মধ্যেই উঠে আসছে নানা দ্বন্দ্ব। এমনকী দলীয় শৃঙ্খলাকে অমান্য করে প্রকাশ্যেই মুখ খুলছেন কেউ কেউ। এনিয়ে দলের অভ্যন্তরের নড়বড়ে অবস্থাই ক্রমশ প্রকাশ্যে আসছিল। এবার তারই নিরিখে দলের শৃঙ্খলারক্ষাকারী কমিটিকে ঢেলে সাজাল কংগ্রেস।

মূলত সাংগঠনিক নির্বাচনের আগে দলের অভ্যন্তরে যাবতীয় দ্বন্দ্বকে মিটিয়ে ফেলতে চাইছেন কংগ্রেস হাইকমান্ড।

প্রবীন কংগ্রেস নেতা একে অ্যান্টনিকে এই প্যানেলের প্রধান করা হয়েছে। এর সঙ্গেই অম্বিকা সোনি, তারিক আনোয়ার, জেপি আগরওয়াল ও জি পরমেশ্বরকে এই প্যানেলের সদস্য় হিসেবে রাখা হয়েছে।

এছাড়াও কর্ণাটকের প্রাক্তন উপমুখ্য়মন্ত্রী জি পরমেশ্বরকে কেন্দ্রীয় পদ দেওয়া হয়েছে। কারণ সেখানকার রাজ্য পার্টি আপাতত ডিকে শিবকুমার ও সিদ্ধারামাইয়ার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

তবে কংগ্রেসের একাংশের মতে, অম্বিকা সোনি নিঃসন্দেহে কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীর অত্যন্ত বিশ্বস্ত ব্যক্তি। এদিকে, এনসিপি ছেড়ে কয়েক বছর আগেই কংগ্রেসে এসেছিলেন তারিক আনোয়ার। তাকে বাড়তি দায়িত্ব দিয়ে কংগ্রেসের অভ্যন্তরে তার গুরুত্ব বৃদ্ধির চেষ্টা করা হয়েছে। দিল্লির প্রাক্তন পিসিসি চিফ জেপি আগরওয়ালকেও এই প্যানেলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই প্যানেল আপাতত এআইসিসি স্তরে যাবতীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ খতিয়ে দেখবে।

অন্য়দিকে, ডেটা অ্যানালিটিক্স হিসেবেও জাতীয় স্তরে সাতজনকে নিয়োজিত করা হয়েছে। সদস্যপদ সংগ্রহের নিরিখে বিপুল তথ্য জমা হচ্ছে কংগ্রেসের অন্দরে। সেসবও খতিয়ে দেখা হবে। পাশাপাশি সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে অনলাইনেও কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার জন্য আহ্বান করছে দল।