ওয়াজেদ মিয়ার মৃত্যুবার্ষিকীতে দোয়া-কোরআন তেলাওয়াত

Social Share

করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের মধ্যে এ বছর আনুষ্ঠানিকতা বেশি না থাকলেও ধানমণ্ডির সুধা সদনে এবং ওয়াজেদ মিয়ার বাড়ি রংপুরের পীরগঞ্জে দোয়া ও কোরআন তেলাওয়াত হয়েছে।

আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া শনিবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া ও কোরআন খতম দেওয়া হয়েছে। সুধা সদন ও পীরগঞ্জে পরিবারে পক্ষ থেকে দোয়া ও কোরআন তেলাওয়াত করা হয়।”

১৯৪২ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার ফতেপুর গ্রামে ওয়াজেদ মিয়ার জন্ম। প্রয়াত আবদুল কাদের মিয়া ও ময়জান নেছার সন্তান ওয়াজেদ মিয়া ‘সুধা মিয়া’ নামেই বেশি পরিচিত ছিলেন।

ওয়াজেদ মিয়া ১৯৬১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতক এবং ১৯৬২ সালে স্নাতকোত্তর করেন। ১৯৬৭ সালে তিনি যুক্তরাজ্যের ডারহাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি অর্জন করেন। ১৯৬৫ সালে তিনি তৎকালীন পাকিস্তান আনবিক শক্তি কমিশনে যোগ দিয়ে চাকরি জীবন শুরু করেন। পরে আনবিক শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যানেরও দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

ছাত্রজীবনে ওয়াজেদ মিয়া ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন এবং ১৯৬১ সালে ফজলুল হক হল ছাত্র সংসদের ভিপি নির্বাচিত হন। তিনি ১৯৬৭ সালে বঙ্গবন্ধুকন্যা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিয়ে করেন।

পরমাণু বিজ্ঞানী ওয়াজেদ মিয়া বাংলাদেশ আনবিক শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে ১৯৯৯ সালে অবসর গ্রহণ করেন। পদার্থবিজ্ঞান বিষয়ে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বই লেখেন ওয়াজেদ মিয়া। রাজনীতি নিয়েও বই তার। ওয়াজেদ মিয়ার উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে রয়েছে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে ঘিরে কিছু ঘটনা ও বাংলাদেশ’ এবং ‘বাংলাদেশের রাজনীতি ও সরকারের চালচিত্র’।

২০০৯ সালের ৯ মে মৃত্যু হয় ওয়াজেদ মিয়ার।