উপজেলা প্রশাসনের ৬টি পদ শূন্য থাকায় সাধারন মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে

মাসুম হাওলাদার, বাগেরহাট:

51
প্রশাসনের
Social Share

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলায়  প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী ভুমি কর্মকর্তা (এসিল্যান্ড) সহ গুরুত্বপূর্ন প্রথম শ্রেনীর ৬টি পদ শূন্য থাকায় স্থবির হয়ে পড়েছে অধিকাংশ কার্যক্রম। যার ফলে উপজেলা প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরগুলোর পদ শূন্য থাকায় জনগনের ভোগান্তির পাশাপাশি দাপ্তরিক কাজের স্থবিরতা দেখা দিয়েছে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ নভেম্বর ইউএনও বদলী হয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খাতুনে জান্নাত। পরবর্তীতে বদলী হয়েছেন উপজেলা প্রকৌশলী মো. আঃ মতিন, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এম.এম পারভেজ, সমবায় কর্মকর্তা মো. মনিরুল ইসলাম। প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার পদ শূণ্য রয়েছে এক বছরেরও বেশী সময় এবং সহকারী ভুমি কর্মকর্তা (এসিল্যান্ড) এর পদ শূন্য রয়েছে বেশ কয়েক বছর ধরে। রায়েন্দা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যন ও আওয়ামী লীগ নেতা এমএ রশিদ আকন বলেন, উপজেলা প্রশাসনের গুরুত্বপূর্ন পদে বিভিন্ন উপজেলার কর্মকর্তারা ভারপ্রাপ্তে দায়িত্ব পালণ করায় দাপ্তরিক কাজে আসা সাধারন মানুষ ঠিকমত কর্মকর্তাদের পাচ্ছে না ।

এ বিষয়ে শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রায়হান উদ্দিন শান্ত বলেন, দীর্ঘদিন ধরে উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা না থাকায় সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে তদারকিতে ব্যহত হচ্ছে। এছাড়া নির্বাহী কর্মকর্তা সহ গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে কর্মকর্তা না থাকায় সাধারন মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। বিষয়টি সমাধানে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুর রহমান বলেন, শরণখোলা উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তার পদ শূন্যের বিষয়টি উর্ধ্বতন মহলে অবহিত করা হয়েছে। শীঘ্রই এর সমাধান হবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।

এ বিষয়ে শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রায়হান উদ্দিন শান্ত বলেন, দীর্ঘদিন ধরে উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা না থাকায় সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে তদারকিতে ব্যহত হচ্ছে। এছাড়া নির্বাহী কর্মকর্তা সহ গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে কর্মকর্তা না থাকায় সাধারন মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। বিষয়টি সমাধানে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুর রহমান বলেন, শরণখোলা উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তার পদ শূন্যের বিষয়টি উর্ধ্বতন মহলে অবহিত করা হয়েছে। শীঘ্রই এর সমাধান হবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।

এ বিষয়ে শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রায়হান উদ্দিন শান্ত বলেন, দীর্ঘদিন ধরে উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা না থাকায় সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে তদারকিতে ব্যহত হচ্ছে। এছাড়া নির্বাহী কর্মকর্তা সহ গুরুত্বপূর্ণ পদগুলোতে কর্মকর্তা না থাকায় সাধারন মানুষের ভোগান্তি বেড়েছে। বিষয়টি সমাধানে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। বাগেরহাট জেলা প্রশাসক মোঃ আজিজুর রহমান বলেন, শরণখোলা উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তার পদ শূন্যের বিষয়টি উর্ধ্বতন মহলে অবহিত করা হয়েছে। শীঘ্রই এর সমাধান হবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।