উত্তাল শ্রীলঙ্কা; সাঙ্গাকারা-জয়াবর্ধনের ‘অন্যরকম’ বার্তা

38
উত্তাল শ্রীলঙ্কা
Social Share

উত্তাল শ্রীলঙ্কা; চরম অর্থনৈতিক দুরবস্থার মধ্যে দ্বীপরাষ্ট্র শ্রীলঙ্কায় সরকার পক্ষ ও বিরোধীদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের পরে দেশটির প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন। এর মধ্যে সহিংসতার মধ্যে পড়ে এক এমপি’সহ কমপক্ষে ৭ নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সরকার দেশটির সেনাবাহিনী ও পুলিশকে জরুরি ক্ষমতা দিয়েছে। ফলে সংস্থা দু’টি এখন কোনো পরোয়ানা ছাড়াই যে কাউকে গ্রেফতার করতে পারবে।

মাহিন্দা রাজাপাকসে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন সোমবার বিকালে। এর পরপরই শুরু হয় লঙ্কাকাণ্ড। সোমবার রাত থেকে শুরু করে মঙ্গলবারও এ দৃশ্য চোখে পড়েছে শ্রীলঙ্কার আনাচে-কানাচে। পরিস্থিতি সামাল দিতে দেশটিতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। দেশব্যাপী আরোপ করা হয়েছে কারফিউ।

নিজ দেশের এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে মুখ খুললেন দেশটির ক্রিকেটর কিংবদন্তি দুই তারকা কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনে।

দেশের এমন পরিস্থিতির জন্য সরকারকেই দায়ী করেছেন তারা। এ সহিংসতা রাজাপাকসের দলের পরিকল্পিত বলে মন্তব্য সাঙ্গাকারার।

এ বিষয়ে এক টুইটে সাঙ্গাকারা লিখেছেন, ‘প্রতিবাদকারী জনতা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে নিজেদের মৌলিক অধিকারের দাবি তুলেছেন। কিন্তু তাদের ওপর সরকার সমর্থক গুন্ডা বাহিনী হামলা চালিয়েছে। এটা সরকারের মদদে পরিকল্পিত সহিংসতা।’

সাঙ্গাকারার সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন জয়াবর্ধনেও। সহিংসতার একটি ভিডিও ফুটেজ টুইটারে পোস্ট করেছেন জয়া। সেখানে দেখা যাচ্ছে, প্রতিবাদকারী একজন নারীকে কয়েকজন শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করছে। তিনি লিখেছেন, ‘একজন পুলিশ কর্মকর্তার সামনে এভাবেই সরকারি গুন্ডা বাহিনী একজন নারীকে নির্দয়ভাবে পেটাচ্ছে। লজ্জার ব্যাপার। সরকারি রাজনৈতিক দল ও সরকার সহিংসতাকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে।’

…………………………………………………………………………………….\

উত্তাল শ্রীলঙ্কা; দেশের এমন পরিস্থিতির জন্য সরকারকেই দায়ী করেছেন তারা। এ সহিংসতা রাজাপাকসের দলের পরিকল্পিত বলে মন্তব্য সাঙ্গাকারার। এ বিষয়ে এক টুইটে সাঙ্গাকারা লিখেছেন, ‘প্রতিবাদকারী জনতা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে নিজেদের মৌলিক অধিকারের দাবি তুলেছেন। কিন্তু তাদের ওপর সরকার সমর্থক গুন্ডা বাহিনী হামলা চালিয়েছে। এটা সরকারের মদদে পরিকল্পিত সহিংসতা।’

সাঙ্গাকারার সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন জয়াবর্ধনেও। সহিংসতার একটি ভিডিও ফুটেজ টুইটারে পোস্ট করেছেন জয়া। সেখানে দেখা যাচ্ছে, প্রতিবাদকারী একজন নারীকে কয়েকজন শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করছে। তিনি লিখেছেন, ‘একজন পুলিশ কর্মকর্তার সামনে এভাবেই সরকারি গুন্ডা বাহিনী একজন নারীকে নির্দয়ভাবে পেটাচ্ছে। লজ্জার ব্যাপার। সরকারি রাজনৈতিক দল ও সরকার সহিংসতাকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে।’ সরকারি রাজনৈতিক দল ও সরকার সহিংসতাকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করছে।’