উত্তর সিটির ঝুঁকিপূর্ণ ওয়ার্ডগুলোতে মশক নিধন কার্যক্রম উদ্বোধন

‘এডিস মশা নিয়ন্ত্রণ করি, ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া মুক্ত থাকি’- এই স্লোগানকে সামনে রেখে এডিস মশা নিধনে ঝুঁকিপূর্ণ ওয়ার্ডগুলোতে ডিএনসিসির বিশেষ মশক নিধন ও জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

আজ (২৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১টায় রাজধানীর মিরপুরে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ১২ নম্বর ওয়ার্ডে এই বিশেষ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোমিনুর রহমান মামুন।

উল্লেখ্য, ডিএনসিসি এডিস মশার উপদ্রপ হ্রাসকল্পে বছরব্যাপী কার্যক্রম গ্রহণ করেছে যা জানুয়ারি মাস থেকেই চলমান। তবে সম্প্রতি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক জরিপে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের বেশ কিছু ওয়ার্ডকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে যার মধ্যে ডিএনসিসির ৫টি ওয়ার্ড রয়েছে। সেগুলো হলো-  ওয়ার্ড নম্বর ১, ১২, ১৬, ২০ এবং ৩১। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রিপোর্টের আলোকে ডিএনসিসি স্বাস্থ্য বিভাগ সকল ওয়ার্ডে চলমান নিয়মিত কার্যক্রমের সাথে এই ৫টি অঞ্চলে বিশেষ কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

সকালে ১২ নম্বর ওয়ার্ডের পাইকপাড়া সরকারি এ-টাইপ কলোনির মাঠে উদ্বোধনকালে ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেন, আপনাদের সকলের সহযোগিতাই পারে নগরবাসীকে এডিস মশা থেকে মুক্তি দিতে। জনসাধারণকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার প্রতি উদ্বুদ্ধ করে তিনি বলেন, আপনারা নিজ নিজ বাসা-বাড়ি, ভবন এবং এলাকা নিজেরা পরিষ্কার করুন। প্রয়োজনে আমাদের গাড়ি এসে সংগ্রহ করে নিয়ে যাবে। কিন্তু যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ফেলবেন না। কোথাও পানি জমে থাকতে দিবেন না। ডাবের খোসা, চিনের কৌটা, পরিত্যক্ত পেট বোতল, প্লাস্টিকের পট, হাড়ি, ভাঙা বা পরিত্যক্ত ফুলের টব যেখানে সেখানে রাখবেন না।

এসময়ে এসব কলোনি ও সরকারি অফিসপ্রাঙ্গন পরিচ্ছন্ন রাখার বিষয়ে সরকারি স্থাপনার রক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিত সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরের সহায়তা চাওয়া হয়। একইসাথে এসব ভবনের বাসিন্দা ও কর্মচারীদের সপ্তাহে অন্তত একদিন স্বেচ্ছায় নিজ স্বার্থে, নিজের পরিবারের স্বার্থে, নিজেদের এলাকায় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার মাধ্যমে মশকমুক্ত ঢাকা গড়ার আহ্বান জানান প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।

এসময় ১২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন তিতু, অঞ্চল-৪ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা সালেহা বিনতে সিরাজ, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তি, কলোনী বাসিন্দাদের নেতা এবং সিটি কর্পোরেশনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।