উত্তরের শীতে বিপর্যস্ত জনজীবন : সরকারি অনুদান অব্যাহত

295
Social Share

এখন শীতকাল। এই সময়ে দেশের অন্যান্য শহরের তুলনায় উত্তরাঞ্চলে একটু বেশীই শীত পড়ে।এখানে শীত আসেও একটু আগে আবার যায়ও অনেক দেরিতে।তার উপর শীতের মত্রাও অনেক বেশী।গত কয়েকদিন থেকেই এই অঞ্চলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা (৭/৮ ডিগ্রী সেলসিয়াস, তেতুলিয়ায়) রেকর্ড হয়েছে।একসময় অনেকেই কটাক্ষ করে বলত যে,উত্তর বংগের মানুষ ভাই পাইলে আল্লাহর নাম ভুলে যায়”
কিন্ত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষনতার কারনে সেই মংগা(অভাব)এখন আর নাই।দেশের অন্যান্য বিভাগের ন্যায় উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে উত্তরাঞ্চল।রাস্তা-ঘাট,স্কুল-কলেজ ক্রীড়া-সংস্কৃতি সকল ক্ষেত্রেই অনেক উন্নতি সাধন হয়েছে এখানে।
নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার জহুরুল বলেন,শেখের বেটির জন্যে এখন তিনবেলা খাইতে পারি বাহে।এই শেখের বেটির যেন যুগ যুগ বাঁচি থাকে এই দোয়া মুই করো সুবসময়”
শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত পৌচেছে।এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন চোখে পড়ার মতো।ঢাকা যেতে একসময় ১৮/১৯ ঘন্টার বেশী সময় লাগতো। কিন্ত এখন প্রায় ৪/৫ টি ট্রেন চালু হয়েছে।ঢাকা যেতে ৬/৭ ঘন্টার বেশী লাগে না।
তবে,দেকারত্বের দুষ্টু চক্র হতে বের হতে পারছে না এই অঞ্চলের বেশীরভাগ মানুষ।এই কনকনে শীতে জীবন যাপন খুব কঠিন হয়ে পড়েছে অনেকেরই।শীতের একটা মানসম্মত কম্বল কিনতে কম করে হলেও ১ হাজার টাকার মতো লাগে।কিন্ত দু:খজনক হলেও সত্য যে এই টাকা দিয়ে কম্বল কেনার সামর্থ এখানকার প্রায় ৩৮% মানুষের নাই।এখনো সরকারী অনুদানের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয় এদের অনেককেই।ডিমলা ছাতনাইয়ের সাইদুল ইসলাম বলেন যে,”অতো টাকা দিয়া কম্বল কিনিবার জোর মোর নাই।সরকারতো কম্বল দিবেখেই।ওই অপেক্ষায় আছো”
শীত থেকে বাঁচার জন্য বিভিন্ন স্থানে আগুন জ্বালিয়ে গোল করে বসে থাকতে দেখা গেছে অনেককেই।

………………………………………………………………………………………..

তবে,দেকারত্বের দুষ্টু চক্র হতে বের হতে পারছে না এই অঞ্চলের বেশীরভাগ মানুষ।এই কনকনে শীতে জীবন যাপন খুব কঠিন হয়ে পড়েছে অনেকেরই।শীতের একটা মানসম্মত কম্বল কিনতে কম করে হলেও ১ হাজার টাকার মতো লাগে।কিন্ত দু:খজনক হলেও সত্য যে এই টাকা দিয়ে কম্বল কেনার সামর্থ এখানকার প্রায় ৩৮% মানুষের নাই।এখনো সরকারী অনুদানের জন্য অপেক্ষায় থাকতে হয় এদের অনেককেই।ডিমলা ছাতনাইয়ের সাইদুল ইসলাম বলেন যে,”অতো টাকা দিয়া কম্বল কিনিবার জোর মোর নাই।সরকারতো কম্বল দিবেখেই।ওই অপেক্ষায় আছো”
শীত থেকে বাঁচার জন্য বিভিন্ন স্থানে আগুন জ্বালিয়ে গোল করে বসে থাকতে দেখা গেছে অনেককেই।