ইয়াবাসম্রাট আমিন হুদা মারা গেছেন

Social Share

ইয়াবা সম্রাট ৭৯ বছরের সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি আমিন হুদা মারা গেছেন। গতকাল শুক্রবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের (বিএসএমএমইউ) প্রিজন সেলে তাঁর মৃত্যু হয়। দেশে ইয়াবা কারবার শুরু হওয়ার পরপরই ২০০৭ সালের ২৪ অক্টোবর র‌্যাব তাঁকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও ইয়াবা তৈরির সরঞ্জামসহ গ্রেপ্তার করেছিল।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মো. মাহবুবুল ইসলাম জানান, আমিন হুদা হৃদেরাগসহ শারীরিক নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। গতকাল দুপুর ১টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে মারা গেছেন তিনি। আইনি প্রক্রিয়া শেষে তাঁর লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

কারাগার-সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, সাজা হওয়ার পর আমিন হুদা কারাগারে ছিলেন প্রায় সাত বছর ধরে। এর মধ্যে বিভিন্ন মেয়াদে প্রায় তিন বছর কাটিয়েছেন হাসপাতালের কেবিনে।

২০০৭ সালের ২৪ অক্টোবর মাদকসহ গ্রেপ্তার হন আমিন হুদা ও তাঁর সহযোগী আহসানুল হক ওরফে হাসান। গুলশানের একটি বাড়ি থেকে ৩০ বোতল ফেনসিডিলসহ আমিন হুদা ও তাঁর সহযোগী আহসানুল হক ওরফে হাসানকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে তাঁদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গুলশানের আরেকটি বাসা থেকে ১৩৮ বোতল মদ, পাঁচ কেজি ইয়াবা বড়ি (এক লাখ ৩০ হাজার পিস) এবং ইয়াবা তৈরির উপাদান ও আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি উদ্ধার করা হয়। ওই ঘটনায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে আসামিদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়। ওই দুই মামলায় ২০১২ সালের ১৫ জুলাই এক রায়ে আমিন হুদা ও তাঁর সহযোগী আহসানুল হককে বিভিন্ন ধারায় জরিমানাসহ ৭৯ বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। এই রায়ের বিরুদ্ধে একই বছরের ২৯ জুলাই হাইকোর্টে আপিল করার পাশাপাশি জামিনেরও আবেদন করেন আমিন হুদা। ২০১৩ সালে হাইকোর্ট তাঁকে জামিন দেন। এর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করলে ওই বছরের ৫ মে আপিল বিভাগ জামিন বাতিল করে তাঁকে আত্মসমর্পণ করতে এবং হাইকোর্টে আপিল নিষ্পত্তির জন্য নির্দেশ দেন। এর পর থেকে তিনি কারাগারে ছিলেন।