ইমরান খানকে ধুয়ে দিলেন হরভজন-শামি

কাশ্মীর ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তানের রাজনীতি যেমন উত্তপ্ত, তেমনই দুই দেশের ক্রিকেটারদের টুইট যুদ্ধ চলছেই। জাতিসংঘে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বক্তৃতার ইস্যুকে কেন্দ্র করে তাকে ধুয়ে দিয়েছেন ভারতের পেসার মোহাম্মদ শামি এবং সাবেক স্পিন তারকা হরভজন সিং। গত সপ্তাহে নিউ ইয়র্কে পাক প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য়ে বেজায় চটেছেন শামি-ভাজ্জি। এবারে টুইটারেই ইমরানকে এক হাত নিলেন ভারতের দুই স্টার ক্রিকেটার।

গত অগাস্টে এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তে জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার করা হয়। পাশাপাশি জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার প্রস্তাবও দেওয়া হয়েছিল। এরই প্রতিবাদে শেষ কয়েক মাস কাশ্মীর ইস্যুতে সরব হয়েছে পাকিস্তান। রাষ্ট্রপুঞ্জের পোডিয়ামে দাঁড়িয়ে ইমরান ভারত-পাকিস্তানের সম্ভাব্য যুদ্ধের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। সাবেক বিশ্বকাপ জয়ী পাকিস্তান অধিনায়ক বলেন, ‘যদি দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে যুদ্ধ বাঁধে তাহলে যে কোনো কিছু হতে পারে। একটা দেশ অন্য দেশের থেকে সাতগুণ ছোট। সেক্ষেত্রে আমরা স্বাধীনতার জন্য লড়ব, নতুবা মরব।’

ইমরানের বক্তব্যে পরমাণু যুদ্ধের ইঙ্গিত থাকায় হরভজন সিং টুইটারে লিখেন, ‘জাতিসংঘে দেওয়া ইমরান খানের বক্তব্য সম্ভাব্য পরমাণু যুদ্ধের ইঙ্গিত ছিল। উনি রক্তস্নান করতে চেয়েছেন ও শেষ পর্যন্ত লড়ার কথা বলেছেন। এরকম চললে দুই রাষ্ট্রের মধ্যে শুধুই হিংসা বাড়বে। একজন স্পোর্টসপার্সন হিসাবে ওনার থেকে শান্তি প্রতিষ্ঠার আহবান প্রত্যাশা করব।’

অন্যদিকে তারকা পেসার মোহাম্মদ শামি টুইটারে লিখেছেন, ‘মহাত্মা গান্ধী আজীবন ভালবাসা, সমন্বয় ও শান্তির বার্তা দিয়ে গেছেন। কিন্তু জাতিসংঘের মতো মঞ্চে দাঁড়িয়ে ইমরান খান হিংসার কথা বলে হুমকি দিলেন যা দুঃখজনক। পাকিস্তানের এমন একজন নেতা দরকার, যিনি উন্নয়ন, চাকরি ও অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির কথা বলবেন। যুদ্ধ আর সন্ত্রাসের বার্তা দেবেন না।’