ইতিহাস বিকৃতিকারীদের কোনো ক্ষমা নেই : কৃষিমন্ত্রী

Social Share

কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতিকারীদের কোনো ক্ষমা নেই, ১৫ আগস্টের খুনিদের কোনো ক্ষমা নেই। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর প্রাক্কালে দেশ ও গণতন্ত্রবিরোধী সব ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন করতে হবে।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর অফিসার্স ক্লাব আয়োজিত বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কৃষিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর ‘তলাবিহীন ঝুড়ি’ আখ্যায়িত করে যারা অপমান করেছিল, সেই তাদের কণ্ঠেই এখন বাংলাদেশের অগ্রগতির প্রশংসা। দারিদ্র্য আর দুর্যোগের বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উত্তরণের পথে।

বিজয় দিবসকে বাঙালির গৌরবের দিন ও শ্রেষ্ঠতম অর্জনের দিন হিসেবে উল্লেখ করে ড. রাজ্জাক বলেন, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, নারীর ক্ষমতায়ন, মাথাপিছু আয় বৃদ্ধিসহ আর্থসামাজিক প্রতিটি সূচকে বাংলাদেশ যে অগ্রগতি গত কয়েক বছরে অর্জন করেছে, উন্নয়নের সেই ধারা অব্যাহত রাখতে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্ব পালনের মধ্যদিয়ে আমরা কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছাব।

মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে শান্তি ও সমৃদ্ধশালী একটি সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় সবাইকে দায়িত্বপালনের আহ্বান জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একাত্তরের ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানে লাখো জনতার সামনে ঐতিহাসিক ভাষণেই স্বাধীনতার ঘোষণা দেন। ভাষা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে স্বাধিকারের চেতনার যে স্ফুরণ ঘটেছিল, কালক্রমে তা সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধে রূপ নেয়। লাখো শহিদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার সুফল জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে সম্মিলিত প্রচেষ্টার বিকল্প নেই।

মন্ত্রীপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন অফিসার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন খান।