ইতিহাসের প্রথম ডাবল সুপার ওভারের ম্যাচে অসাধারণ জয় পাঞ্জাবের

Social Share

টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম ডাবল সুপার ওভারের ম্যাচ দেখলো বিশ্ববাসী। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটের ত্রয়োদশ আসরের ৩৬তম ম্যাচে ডাবল সুপার ওভারে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে হারালো কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।
দুবাইয়ে গত রাতে দিনের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে মুম্বাই। ওপেনার দক্ষিণ আফ্রিকার কুইন্টন ডি ককের ৫৩, ক্রুনাল পান্ডিয়ার ৩৪, ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাইরন পোলার্ডের ১২ বলে ১টি চার ও ৪টি ছক্কায় অপরাজিত ৩৪ এবং অস্ট্রেলিয়ার নাথান কলটার-নাইলের ১২ বলে অপরাজিত ২৪ রানের কল্যাণে ৬ উইকেটে ১৭৬ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর পায় মুম্বাই।
জবাবে অধিনায়ক লোকেশ রাহুলের দুর্দান্ত ব্যাটিংএ জয়ের পথেই হাটছিলো পাঞ্জাব। রাহুলের হাফ-সেঞ্চুরির ইনিংসে ১৭ ওভারে ৪ উইকেটে ১৫০ রান তুলে ফেলে পাঞ্জাব। ফলে শেষ ৩ ওভারে জয়ের জন্য ২৭ রানের প্রয়োজন পড়ে পাঞ্জাবের। ১৮তম ওভারের তৃতীয় বলে দুর্দান্ত এক ইর্য়কারে রাহুলকে বিদায় দিয়ে মুম্বাইয়ের মুখে হাসি ফোটান পেসার জসপ্রিত বুমরাহ। ৫১ বলে ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৭৭ রান করেন ইনফর্ম রাহুল। এই ইনিংসের মাধ্যমে এবারের আসরে ৯ ম্যাচে সর্বোচ্চ ৫২৫ রান সংগ্রহ করে ফেললেন তিনি।
রাহুলের বিদায়ের পর দিপক হুদা ও ইংল্যান্ডের ক্রিস জর্ডান পাঞ্জাবের আশা ধরে রাখেন। শেষ ওভারে ৯ রানের প্রয়োজনে প্রথম ৫ বলে ৭ রান তুলেছিলেন তারা। নিউজিল্যান্ডের ট্রেন্ট বোল্টের করা ঐ ওভারের শেষ বলে ২ রান দরকার পড়ে পাঞ্জাবের। শেষ বলে ১ রান আসলে ম্যাচটি টাই হয়। ফলে ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। মুম্বাইয়ের বুমরাহ ২৪ রানে ৩ উইকেট নেন।
সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করে মুম্বাইয়ের বুমরাহর পেস তোপে মাত্র ৫ রান তুলে পাঞ্জাব। ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারেননি পাঞ্জাবের রাহুল ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের নিকোলাস পুরান। দু’জনকেই আউট করেন বুমরাহ।
৬ রানের টার্গেট স্পর্শ করতে পারেননি মুম্বাইয়ের দুই ব্যাটসম্যান ডি কক ও অধিনায়ক রোহিত শর্মা। পাঞ্জাবের পেসার মোহাম্মদ সামির করা ওভারের প্রথম ৫ বলে ৪ রান তুলেন ডি কক-রোহিত। তাই শেষ বলে ২ রান দরকার পড়ে মুম্বাইয়ের। কিন্তু ১ রানের বেশি পাননি ডি কক ও রোহিত। ২ রান নিতে গিয়ে রান আউট হন ডি কক। ফলে এখানেও রান সমান হওয়ায়, দ্বিতীয়বারের মত ম্যাচটি গড়ায় সুপার ওভারে। ইতিহাস হয়ে যায় এক ম্যাচে দুটি ওভারের।
দ্বিতীয় সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করে মুম্বাই। নিয়মনুযায়ী প্রথম সুপার ওভারে যারা ব্যাটিং ও বোলিং করেছিলেন, তারা দ্বিতীয় সুপার ওভারে ব্যাটিং-বোলিং করতে পারবেন না। তাই মুম্বাইয়ের পক্ষে ব্যাট হাতে নামেন পোলার্ড ও হার্ডিক পান্ডিয়া। জর্ডানের ওভার থেকে পান্ডিয়াকে হারিয়ে ১ উইকেট হারিয়ে ১১ রান তুলে মুম্বাই।
ম্যাচ জয়ের জন্য ১২ রানের টার্গেট পায় পাঞ্জাব। মুম্বাইয়ের বোল্টের করা প্রথম বলেই ছক্কা মারেন পাঞ্জাবের ওয়েস্ট ইন্ডিজের মারকুটে ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল। তৃতীয় ও চতুর্থ বলে চার মেরে পাঞ্জাবকে অসাধারন জয়ের স্বাদ দেন গেইলের সঙ্গী মায়াঙ্ক আগারওয়াল।
এই জয়ে ৯ খেলায় ৬ জয়ে ১২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয়স্থানে থাকলো মুম্বাই। সমানসংখ্যক ম্যাচে ৩ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ষষ্ঠস্থানে উঠলো পাঞ্জাব।