ইউক্রেন ইস্যু, রাশিয়ার প্রস্তাবে রাজি নয় আমেরিকা

80
ইউক্রেন
Social Share

রাশিয়ার অন্যতম উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ন্যাটো সামরিক জোটে ইউক্রেন এর সদস্যপদ নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় তেমন কোনও অগ্রগতি হয়নি। সোমবার) সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরে মার্কিন উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যানের সঙ্গে সের্গেই রিয়াবকভ বৈঠক করেন।

বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদেরকে জানান, নিরাপত্তা ইস্যুতে আমেরিকার সঙ্গে যে বৈঠক হয়েছে সেখানে সবচেয়ে বেশি মতপার্থক্য ছিল ন্যাটো জোটে ইউক্রেনের সদস্যপদ নিষিদ্ধ করার প্রশ্নে। তিনি জানান, বৈঠকে আমেরিকা বলেছে যে, ন্যাটো জোটে কাকে সদস্য করা হবে। তা নিয়ে রাশিয়া অথবা অন্য কেউ কোনো পরামর্শ দিতে পারে না। অন্যদিকে, মস্কো সম্পূর্ণভাবে জোর দিয়ে বলেছে যে, ইউক্রেনকে কখনওই ন্যাটোর সদস্য করা যাবে না সেটি বাধ্যতামূলক করতে হবে।

রিয়াবকভ বলেন, “রাশিয়া লোহা ঢালা প্রাচীরের মতো শক্ত নিশ্চয়তা চায় যে, ইউক্রেন কে কখনওই ন্যাটো জোটের সদস্য করা হবে না। কারণ ইউক্রেনকে ন্যাটো জোটের সদস্য পথ দিলে তা রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি সৃষ্টি করবে।”

সোমবার জেনেভা শহরে রিয়াবকভ এবং শেরম্যানের সাত ঘণ্টা বৈঠক হয়। সম্প্রতি ইউক্রেন ইস্যুকে কেন্দ্র করে আমেরিকা এবং তার পশ্চিমা মিত্ররদের রাশিয়ার সামরিক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে জেনেভায় বৈঠক হলো।

……………………………………………………………………………………………

রাশিয়ার অন্যতম উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, ন্যাটো সামরিক জোটে ইউক্রেন এর সদস্যপদ নিষিদ্ধ করার ব্যাপারে মার্কিন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় তেমন কোনও অগ্রগতি হয়নি। সোমবার) সুইজারল্যান্ডের জেনেভা শহরে মার্কিন উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়েন্ডি শেরম্যানের সঙ্গে সের্গেই রিয়াবকভ বৈঠক করেন।

বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদেরকে জানান, নিরাপত্তা ইস্যুতে আমেরিকার সঙ্গে যে বৈঠক হয়েছে সেখানে সবচেয়ে বেশি মতপার্থক্য ছিল ন্যাটো জোটে ইউক্রেনের সদস্যপদ নিষিদ্ধ করার প্রশ্নে। তিনি জানান, বৈঠকে আমেরিকা বলেছে যে, ন্যাটো জোটে কাকে সদস্য করা হবে। তা নিয়ে রাশিয়া অথবা অন্য কেউ কোনো পরামর্শ দিতে পারে না। অন্যদিকে, মস্কো সম্পূর্ণভাবে জোর দিয়ে বলেছে যে, ইউক্রেনকে কখনওই ন্যাটোর সদস্য করা যাবে না সেটি বাধ্যতামূলক করতে হবে।

রিয়াবকভ বলেন, “রাশিয়া লোহা ঢালা প্রাচীরের মতো শক্ত নিশ্চয়তা চায় যে, ইউক্রেনকে কখনওই ন্যাটো জোটের সদস্য করা হবে না। কারণ ইউক্রেনকে ন্যাটো জোটের সদস্য পথ দিলে তা রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি সৃষ্টি করবে।”

সোমবার জেনেভা শহরে রিয়াবকভ এবং শেরম্যানের সাত ঘণ্টা বৈঠক হয়। সম্প্রতি ইউক্রেন ইস্যুকে কেন্দ্র করে আমেরিকা এবং তার পশ্চিমা মিত্ররদের রাশিয়ার সামরিক উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। এই পরিপ্রেক্ষিতে জেনেভায় বৈঠক হলো।