ইংল্যান্ড সফরের আগে কোহলীকে কী কী পরামর্শ দিলেন কপিল দেব

42
Social Share

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিশ্ব টেস্ট ফাইনাল ও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ জিততে হলে বিরাট কোহলীকে আগ্রাসন চেপে রাখতে হবে। অতি আগ্রাসী মানসিকতা না দেখিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় বিপক্ষের দুটো দলের বিরুদ্ধে মোকাবিলা করতে হবে। ভারত অধিনায়ককে এমন পরামর্শ দিলেন কপিল দেব।

১০ বছরের আন্তর্জাতিক সফরে এখনও পর্যন্ত দুবার ইংল্যান্ডে গিয়ে টেস্ট সিরিজ খেলছেন বিরাট। ২০১৪ সালে ৫ টেস্টে মাত্র ১৩৪ রান করেছিলেন কোহলী। সে বার ভারতের বিরুদ্ধে ৩-১ ব্যবধানে জিতেছিল ইংল্যান্ড। তবে ২০১৮ সালের সফরে ৫ ম্যাচে ৫৯.৩০ গড় নিয়ে ৫৯৩ রান করেছিলেন ভারত অধিনায়ক। যদিও ভারত সেই সিরিজও ৪-১ ব্যবধানে হারে। তাই কপিল বলছেন, “নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড সবার আগে কোহলীকে আউট করার চেষ্টা করবে। আমার ধারণা কোহলী সেটা জানে। তাই ওর মাথা ঠাণ্ডা রাখা উচিত। কারণ ও শুধু একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে বিলেত যাচ্ছে না। ও কিন্তু দলের অধিনায়ক। তাই বিরাটের দায়িত্ব অনেক বেশি। বিলেতের আবহাওয়ার সঙ্গে ওকে দ্রুত মানিয়ে নিতে হবে। ইংল্যান্ডের মতো দেশে বাড়তি কিছু করার জন্য আবেগপ্রবণ হয়ে গেলে খুব মুশকিল। তাই শুধু কোহলী নয়, এই লম্বা সফরে গোটা দলকেই ধৈর্য বজায় রাখতে হবে। তবে এই ভারতীয় দলে একাধিক ম্যাচ জেতানো ক্রিকেটার রয়েছে। তাই আমার ধারণা এ বার আমাদের দল চাকা ঘোরাবে।”

২০০৭ সালের ইংল্যান্ড সফরে রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বে শেষ বার টেস্ট সিরিজ জিতেছিল ভারত। এর আগে ১৯৮৬ সালে কপিল দেবের অধিনায়কত্বে ডেভিড গাওয়ারের দলের বিরুদ্ধে ২-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতেছিল ভারত। সেই সফরকে মনে করতে গিয়ে প্রথম বিশ্বকাপ জয়ী প্রাক্তন অধিনায়ক বলছেন, “সে বার ইংল্যান্ডে গিয়ে টেস্ট সিরিজ জেতার বড় কারণ ছিল আমাদের জোরে বোলিং। ব্যাটসম্যানরা সাহায্য করার পাশাপাশি জোরে বোলাররা আগ্রাসী মানসিকতা দেখিয়েছিল। আমাদের এ বারের জোরে বোলিং বিভাগও দারুণ। তাই সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখতেই পারি। তবে ব্যাটসম্যানদের বাড়তি দায়িত্ব নিতে হবে।”