আসবাব শিল্পে প্রশিক্ষণ একাডেমি চান উদ্যোক্তারা

Social Share

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের রুচি ও অভ্যাস বদলে যায়। ফলে উদ্যোক্তারা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ডিজাইনের পণ্য উৎপাদনে মনোযোগ দেন। ফার্নিচার শিল্পে বিশ্বের উন্নত দেশে নানা ধরনের প্রশিক্ষণ কোর্স থাকলেও এ দেশে দক্ষতা বাড়ানোর জন্য কোনো ডিগ্রি নেওয়ার সুযোগ নেই। কিন্তু উদ্যোক্তারা চান ফার্নিচার শিল্পের জন্য ভালো একটি ইনস্টিটিউট।

উদ্যোক্তারা জানান, ফার্নিচার শিক্ষার বিষয়ে ইনস্টিটিউশন হয়েছিল কিন্তু সেগুলো বন্ধ হয়ে গেছে। কিন্তু বিশ্ববাজারে টিকে থাকতে নতুন চিন্তা খুবই প্রয়োজন। এ জন্য গড়ে তুলতে হবে উন্নতমানের একটি প্রশিক্ষণ একাডেমি। সেখান থেকে শিক্ষার্থীরা উচ্চতর ডিগ্রি নিয়ে ফার্নিচার শিল্পে কাজ করতে আসবে।

ব্রাদার্স ফার্নিচারের পরিচালক শরিফুজ্জামান সরকার বলেন, ‘আমরা শিল্পমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছি। বলেছি যে আমাদের একটা ট্রেনিং ফ্যাসিলিটির দরকার। তবে ফার্নিচারে এত বড় বড় কম্পানি থাকা সত্ত্বেও কারো কিন্তু কোনো ডিগ্রি নেওয়ার সুযোগ নেই যে আমি আসলে ফার্নিচার সেক্টরে জবটা করব। এ ধরনের কোনো অবকাশ নেই। এর আগে ফার্নিচার শিক্ষার বিষয়ে ইনস্টিটিউশন হয়েছে কিন্তু ইনস্টিটিউশনগুলো টিকে থাকতে পারেনি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের জায়গা থেকে বলতে পারি, আমরা চেষ্টা করছি ভালো কিছু করার। আমাদের লোকাল কাস্টমারদের একটা ভালো সার্ভিস দেওয়া, একই সঙ্গে ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটেও আমাদের একটা অবস্থান তৈরি করার জন্য কাজ করছি। আমরা রপ্তানি করছি, শিগগিরই আন্তর্জাতিক বাজার নিয়ে ক্যাম্পেইনগুলো দেখতে পাবেন সবাই।’

ফার্নিচার রপ্তানিকারকদের মতে, নিত্যনতুন ডিজাইন, মানসম্মত কাঠ আর কারিগরদের দক্ষতায় ফার্নিচার শিল্প এগিয়ে যায়। ফলে প্রতিযোগিতামূলক বৈশ্বিক বাজারে টিকে থাকতে হলে এখাতে প্রশিক্ষিত লোকবল বৃদ্ধি প্রয়োজন।

জানা গেছে, দেশে ভালো মানের কাঠের স্বল্পতার কারণে বিদেশ থেকে কাঠ আমদানি হচ্ছে। সেই সঙ্গে বিদেশে আসবাব রপ্তানির শর্ত পূরণের জন্য ব্যবহার করতে হয় সার্টিফায়েড উড বা সনদপ্রাপ্ত কাঠ। বনায়ন নিশ্চিত করে প্রাপ্ত কাঠকে বলা হয় সার্টিফায়েড উড। এ কারণে বাংলাদেশে আমদানি হচ্ছে প্রচুর ওক কাঠ। এ কাঠে আসবাব তৈরি করছে দেশের বেশ কয়েকটি শীর্ষ আসবাব প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান। বিশ্বব্যাপী সমাদৃত এ কাঠের ফাইবার বা আঁশ দেখতে বেশ সুন্দর। এ কারণে আসবাবে প্রাকৃতিকভাবে নান্দনিক সৌন্দর্য তৈরি হয়। উত্তর গোলার্ধের বনভূমিতে উত্পাদিত ওক গাছের কাঠ শক্ত ও মজবুত প্রকৃতির।