আমেরিকার থেকে ঘাতক MQ-9 Reaper ড্রোন কিনছে ভারত, নিমিষের মধ্যেই করে দেবে শত্রুদের ধুয়ে মুছে সাফ

Social Share

নয়া দিল্লীঃ ভারত (India) সেই ঘাতক MQ-9 রিপার ড্রোন কিনছে আমেরিকার (America) থেকে, যেটা দিয়ে কয়েক মাস আগে আমেরিকার বাগদাদে ইরানের (Iran) সবথেকে শক্তিশালী জেনারেল কাসিম সুলেমানিকে উড়িয়ে দিয়েছিল। তখন কেউ বুঝতেই পারেনি যে, এই ড্রোন কোথা থেকে এলো? শুধু পলকের নিমিষেই ঘাতক হামলা করে দিয়েছিল এই ড্রোন। MQ-9 বিভিন্ন রকমের মারক হাতিয়ার দিয়ে যুক্ত থাকে। আর এই ড্রোন এত উঁচুতে উড়তে সক্ষম যে, কোন র‍্যাডারেও আসেনা।

আপনাদের জানিয়ে দিই, এই বছরের শুরু আমেরিকা এই ড্রোনকে নিয়ে এমন কাজ করেছিল, যেটা দেখে গোটা বিশ্ব অবাক হয়ে গেছিল। এই ড্রোন প্রথমে ইরানের র‍্যাডার সিস্টেমের চোখে ধুলো দিয়ে ইরানে ঢুকে পড়ে। তারপর বাগদাদের আকাশে সুলেমানির উপর হামলা করার আগে পর্যন্ত উড়তে থাকে। যখনই সুলেমানি বাগদাদ এয়ার্পোর্ট দিয়ে বেরিয়ে নিজের গাড়িতে ওঠেন। তখন এই ড্রোন নীচে এসে এমন হামলা করে, যার ফলে সুলেমানির কোন চিহ্ন পাওয়া যায় না।

আমেরিকার মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, MQ-9 রিপার একটি সশস্ত্র, অনেক কাজে পারদর্শী শক্তিশালী একটি ড্রোন। এই ড্রোন দীর্ঘ সময় পর্যন্ত আকাশে উড়তে পারে। যেখানে আমেরিকার বায়ুসেনা পৌঁছাতে পারেনা, সেখানে এই ড্রোন সহজেই পৌঁছে যায়। আর এরজন্যই এই ড্রোনকে এমন ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে। এই ড্রোন ১ হাজার মাইল পর্যন্ত দূরত্ব পার করতে পারে আর ৫০ হাজার ফুট পর্যন্ত উঁচুতে উড়তে পারে।

এই ড্রোনের ওজন ৪ হাজার ৯০০ পাউন্ড। আর এর মধ্যে ২ হাজার ২০০ লিটার জ্বালানি ধরে। এই ড্রোন নিজের সাথে ৪ হাজার ৭৬০ কেজির ওজন বহন করতে পারে। এই ড্রোন ২৩০ কিমি প্রতি ঘণ্টা গতিতে আকাশে উড়তে পারে। এই ড্রোন নজরদারি, তল্লাশি অভিযান চালানো আর উদ্ধারকার্যে ব্যবহৃত হয়।