‘আমাদের নতুন গন্তব্য চীন’

4
Social Share

চীনের উত্থানে ভূ-প্রকৃতিগতভাবে বিশাল পরিবর্তন আসবে ব্যবসা-বাণিজ্যে ও রাজনীতিতে- জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেন, আমাদের নতুন গন্তব্য চীন। একই সঙ্গে আমাদের প্রতিবেশী ভারতের সঙ্গে ব্যবসা-বাণিজ্য প্রতিনিয়ত বাড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে।

আজ রবিবার দুপুরে ‘গেটিং রেডি ফর এলডিসি (স্বল্পোন্নত দেশ) গ্র্যাজুয়েশন’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমরা অনন্তকাল এলডিসির (স্বল্পোন্নত দেশ) তকমা গায়ে নিয়ে বেড়াতে চাই না। আমাদের যথেষ্ট সক্ষমতা আছে, সেটাকে ব্যবহার করব আমরা।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, করোনা-উত্তর বিশ্ব সম্পূর্ণ নতুন হবে। চায়নার উত্থানসহ ভূ-প্রকৃতিগতভাবে বিশাল পরিবর্তন আসবে ব্যবসা-বাণিজ্যে ও রাজনীতিতে। মধ্যম কাতারের দেশ হিসেবে বৈশ্বিক কোনো ভিশন আমাদের আছে কি না, জানি না। আমি ওই পয়েন্টে নই। তবে আমি মনে করি, আমাদের মাথা ঠাণ্ডা রেখে ঘরের কাজ দিনরাত করা উচিত।

তিনি আরো বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্যে শেষ বিচারে আমাদের কম্পিটিটিভ থাকতে হবে। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আমাদের টেকনিক্যাল ক্যাপাবিলিটি, প্রযুক্তির ব্যবহার, সাংস্কৃতিক কিছু জড়তা আছে সেগুলোকে কাটিয়ে উঠতে হবে। সেদিকে আশা করি আমরা সবাই কাজ করব। আমরা শিক্ষা ক্ষেত্রে এখনো একটু পেছনে আছি। সবাই মিলে এখন যদি এটাকে পুশ করি, এটাও উতরে যাব। পিছলে পড়ার শঙ্কা আছে, তবে হাজার হাজার ধরনের সুযোগ সামনে আসবে। সেগুলো গ্রহণ করার জন্য মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি খুবই জরুরি। আমরা মানসিকভাবে একধরনের বিভ্রান্তিতে ভুগি। সেটা আমাদের পরিষ্কার হওয়া দরকার। বিশ্ব আমাদের ঠিকানা, এটা মনে করা দরকার। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য অনেকে বিশ্বকে ঠিকানা মনে করেন না।’

ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণের বিষয়ে এম এ মান্নান বলেন, বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর অনেকের সঙ্গে কথা বলা খুব কঠিন। যেসব তথাকথিত খুব উন্নত দেশ, তাদের নিজস্ব একটা অ্যাজেন্ডা থাকে তা অনেক সময় আমাদের চোখের সামনেও থাকে না। অনুমান করতে পারি কিন্তু দেখি না।