আফগানিস্তানে স্থিতিশীলতার নেপথ্যে ভারত, পাকিস্তান, রাশিয়ার অবদান : বাইডেন

82
Social Share

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, আফগানিস্তানে স্থিতিশীল ভবিষ্যৎ ফিরিয়ে নিয়ে আসার পেছনে ভারত, পাকিস্তান, রাশিয়া, চীন এবং তুরস্কের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ আফগানিস্তানে স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে এসব দেশের উচিত আরো বেশি করে সহযোগিতা করা। এদিকে ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করে নেবেন তিনি।

হোয়াইট হাউস থেকে গত বুধবার জাতীয়ভাবে টেলিভিশনে দেওয়া বক্তব্যে বাইডেন বলেন, ওই অঞ্চলের অন্য দেশগুলোকে আমরা বলছি- আফগানিস্তানকে আরো সহায়তা করুন। বিশেষ করে পাকিস্তান, রাশিয়া, চীন, ভারত এবং তুরস্ককে এই আহ্বান জানাচ্ছি। আফগানিস্তানে স্থিতিশীল ভবিষ্যৎ ফিরিয়ে নিয়ে আসার ব্যাপারে তাদের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে।

এ বছরের জানুয়ারি মাসের ২০ তারিখ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণের ১০০ দিন পূর্ণ হওয়ার আগেই বাইডেন ঘোষণা দিয়েছেন, আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই ফিরিয়ে নিয়ে আসবেন।

বর্তমানে আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় আড়াই হাজার সৈন্য রয়েছে। বারাক ওবামার সময় সেখানে এক লাখের বেশি সেনা ছিল।

হোয়াইট হাউস প্রেস সেক্রেটারি জেন পিসাকি সাংবাদিকদের বলেন, আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতির কোনো সামরিক সমাধান নেই; বরং কূটনৈতিক সমাধান প্রয়োজন।

তিনি আরো বলেন, আমরা সেখান থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার পরেও কূটনৈতিকভাবে সমর্থন অব্যাহত রাখব এবং মানবিক কাজগুলো চলতে থাকবে। এ ছাড়া আমরা অন্যান্য দেশকেও সেখানে সহযোগিতার কথা বলব। বিশেষ করে পাকিস্তান, রাশিয়া, চীন, ভারত ও তুরস্কের সে দেশে স্থিতিশীল ভবিষ্যৎ ফিরিয়ে নিয়ে আসতে যথেষ্ট অবদান রয়েছে। আমরা মানবিক সহায়তা দেওয়া অব্যাহত রাখব।

জো বাইডেন বলেছেন, আমাদের আক্রমণ করা হয়েছিল। তারপর আমরা সুস্পষ্ট লক্ষ্য নিয়ে যুদ্ধে নেমেছিলাম। আমরা সেই লক্ষ্যগুলো অর্জন করেছি। (ওসামা) বিন লাদেন মারা গেছেন এবং আল-কায়েদার অবস্থা আফগানিস্তানে, ইরাকে অবনতি হয়েছে। যুদ্ধের অবসান ঘটানোর এটাই সময়।

সূত্র : এনডিটিভি।