আফগানিস্তানে তালেবানের দখল অভিযান চলছেই

71
Social Share

আফগানিস্তানে তালেবানের দখল অভিযান চলছেই। দেশটিতে তালেবানের হাতে মাত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আরেকটি প্রাদেশিক রাজধানীর পতন হয়েছে। শুক্রবার নিমরোজের রাজধানী জারাঞ্জের পর গতকাল জাওজান প্রদেশের রাজধানী সেবারঘানের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে তালেবান গোষ্ঠী।

প্রদেশটির ডেপুটি গভর্নর কাদের মালিয়া এমন তথ্য জানান। কাদের মালিয়া আরও বলেন, বিমানবন্দর থেকে পিছু হটেছে সরকারি বাহিনী ও কর্মকর্তারা। এই শহরে কুখ্যাত যুদ্ধবাজ রশিদ দুস্তুমের বাস। এই সপ্তাহেই তিনি তুরস্কে চিকিৎসা শেষে আফগানিস্তান ফিরেছেন। মে মাসে হামলা জোরদার করার পর থেকে আফগানিস্তানের বিশাল গ্রামীণ এলাকার দখল নিয়েছে তালেবানরা। বিদেশি ও মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া প্রায় চূড়ান্ত হওয়ার সময়ে এসব অভিযান চালাচ্ছে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি। শুক্রবার কোনো লড়াই ছাড়াই নিমরোজ প্রদেশের প্রাদেশিক রাজধানী জারাঞ্জ দখল করেছে তালেবান। সশস্ত্র গোষ্ঠীটির দখল করা প্রথম প্রাদেশিক রাজধানী শহর এটি। বেশ কয়েকটি সূত্র এএফপি গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, জাওজাজান প্রদেশের রাজধানী শেবেরগানে তালেবানে কিছুটা প্রতিরোধের মুখে পড়তে হয়। তবে দস্তুমের এক উপদেষ্টা নিশ্চিত করেছেন তালেবানরা শেষ পর্যন্ত শহরটি দখল করেছে।

আন্তর্জাতিক বৈধতা পাবে না তালেবান : আফগানিস্তানের জাতীয় ক্ষমতায় আসীন হতে মরিয়া তালেবানগোষ্ঠী যদি তাদের অভিযান ও বেসামরিক লোকজন হত্যা অব্যাহত রাখে, সেক্ষেত্রে তারা আন্তর্জাতিক বৈধতা পাবে না। হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে তালেবানগোষ্ঠীর উদ্দেশে এই সতর্কবার্তা দিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে জেন সাকি বলেন, ‘সম্প্রতি আফগানিস্তানে তালেবানগোষ্ঠী যা যা করছে, তারা যদি কখনো আন্তর্জাতিক বৈধতা চায়, সেক্ষেত্রে আমরা নিশ্চিত করে বলতে পারি- তারা কোনো প্রকার আন্তর্জাতিক বৈধতা পাবে না।’ ‘এই ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান হলো- আফগানিস্তানের জাতীয় ক্ষমতায় যেতে যে পথ তালেবান অবলম্বন করছে, অবশ্যই তা থেকে তাদের সরে আসতে হবে এবং সংঘাতমূলক কর্মকান্ডে তারা যে পরিমাণ শক্তি ব্যবহার করছে, সেই পরিমাণ শক্তি দেশে শান্তি স্থাপনের উদ্দেশে ব্যয় করতে হবে।’ ২০০১ সালে ১১ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কের টুইন টাওয়ারে বিমান হামলা করেছিল মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়েদা নেটওয়ার্ক। সে সময় এই গোষ্ঠীর প্রধান ঘাঁটি ছিল তালেবান শাসিত আফগানিস্তান। টুইন টাওয়ারে হামলার জেরে ওই বছর আফগানিস্তানে অভিযান শুরু করে মার্কিন ও পশ্চিমা সামরিক জোট ন্যাটো। অভিযানে পতন হয় তালেবান সরকারের। অভিযানের প্রায় ২০ বছর পর চলতি বছর এপ্রিলে আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন ও ন্যাটো সৈন্য প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ঘোষণায় তিনি বলেছিলেন, ২০২১ সালের ১১ ডিসেম্বরের মধ্যে সব মার্কিন ও ন্যাটো সেনাসদস্যকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। পরে এই সময়সীমাকে আরও এগিয়ে ৩১ আগস্ট করা হয়। বাইডেনের এই ঘোষণার পর থেকেই নতুন উদ্যমে আফগানিস্তান পুনরায় নিজেদের দখলে নিয়ে আসার অভিযান শুরু করেছে কট্টরপন্থি ইসলামি গোষ্ঠী তালেবান। মার্কিন সামরিক বাহিনীর সদর দফতর পেন্টাগনের তথ্য অনুযায়ী, আফগানিস্তানের ৪১৯টি জেলার অর্ধেকেরও বেশির দখল নিয়েছে তালেবান। তালেবান দখলকৃত এলাকাসমূহের মধ্যে ইরান ও পাকিস্তানের সীমান্ত সংলগ্ন জেলাগুলোও আছে। বিবিসি