আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বাগেরহাটে ৭ দিনব্যাপী বইমেলা উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক

14
Social Share

মাসুম হাওলাদার, বাগেরহাট প্রতিনিধি: মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বাগেরহাটে ৭ দিনব্যাপী বইমেলা শুরু হয়েছে। রবিবার বিকেলে শহরের স্বাধীনতা উদ্যান সংলগ্ন জেলা পরিষদ মিলনায়তন চত্বরে এই বই মেলার উদ্বোধন করেন বাগেরহাট  জেলা প্রশাসক আ ন ম ফয়জুল হক। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মেলা প্রাঙ্গনে প্রতিদিন সেমিনার, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্টানের আয়োজন করা হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক খোন্দকার রিজাউল করিমের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাগেরহাট জেলা পুলিশ সুপার পঙ্কজ চন্দ্র রায়, ডিডিএলজি দেবপ্রসাদ পাল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)মোঃ শাহিনুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান,সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাব্বেরুল ইসলাম,  জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো: শাহ-আলম, অধ্যাপক মোজাফ্ফর হোসেন, লেখক কমল কৃষ্ণ ঘোষ, নারী নেত্রী রিজিয়া পারভিন, এ্যাড: শরীফা হেমায়েত প্রমুখ।বাগেরেহাট জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এই বই মেলায় দেশের বিভিন্ন প্রকাশনা সংস্থার প্রায় ৩০টি স্টল রয়েছে। এসব স্টলে প্রায় ২৫ শতাংশ ছাড়ে পাঠকরা বই কিনতে পারবেন। বই মেলায় আগত দর্শনার্থীদের জন্য প্রতিদিন বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।জেলা প্রশাসক আনম ফয়জুল হক বলেন, সার্থক মানুষ গড়তে বই পড়া খুবই জরুরী, কেননা বই আত্মর পরমাত্মীয়। সমৃদ্ধ স্বদেশ বিনির্মাণে আলোকিত মানুষ গড়তে বইয়ের বিকল্প নেই। বই পড়া, বই পড়ার অভ্যাস করা এবং সৃনজনশীলতা চর্চা করার জন্য মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বইমেলার আয়োজন করা হয়েছে। নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের বই পড়ার প্রতি বিশেষভাবে আগ্রহী করে গড়ে তুলতে এই বইমেলা। বই পড়ার মাধ্যমেই তাদের চেতনা শানিত হবে। মেধা মননের সত্যিকারের চর্চা তারা করতে পারবে এবং প্রকৃতি মানুষ হিসেবে ক্রমান্বয়ে বিকাশিত হবে। প্রতিটি মা-বাবাকে সন্তানদের সাথে নিয়ে এই বইমেলায় আসার আহ্বান জানান তিনি।২১ ফেব্রুয়ারি বিকেলে শুরু হওয়া এই বই মেলা ২৮ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় শেষ হবে। প্রতিদিন বিকেল ৪টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এই মেলা থেকে কেনাকাটা করা যাবে। বইমেলায় দেশের বিভিন্ন স্থানের ৩০টি স্টল অংশগ্রহন করেছেন। মেলায় দি ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেড, অন্য প্রকাশ, সময় প্রকাশনী, কাকলী প্রকাশনী, গাংচিল আন্তর্জাতিক সাহিত্য সংস্কৃতি পরিষদসহ অনেক খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠানের স্টল রয়েছে।