আজ রাতে মনে পড়ে

263
Social Share

সব ভালোবাসার গল্পের শুরুটা বোধহয় একরকম…. কিন্তু সব গল্পের শেষে বোঝা যায় গল্পটা ভালোবাসার না বিচ্ছেদের । তমা এবং জাবেদ তুমুল প্রেম ক্যাম্পাস কাঁপিয়েছে । মাস্টার্স এর শেষে তারা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয় । জাবেদের পরিবার তমাকে খুশি মনে মেনে নিলেও, তমার পরিবার আপাতত বেকার জাবেদকে মেনে নেয় না। তারা ধনি ও প্রতিষ্ঠিত এক ছেলের সাথে বিয়ে ঠিক করে । তমার ভালবাসা পরিবারের যুক্তির কাছে হেরে যায় । ধুমধাম করে তমার বিয়ে হুয় হাবিবের সাথে । সে চলে যায় নতুন শহরে.. আর জাবেদকে দিয়ে যায় যন্ত্রণার একলা ঘর।

কেটে যায় সাত বছর। জাবেদ জানতে পারে তমা চলে এসেছে , ডিভোর্সের আবেদন করেছে তমা । জাবেদ জানতে পারে , ধনী হাজবেন্ডের গরীব মানসিকতার গল্প , মদ খেয়ে করে বাড়ি ফেরা , তমার গায়ে হাত তুলা আরো মানসিকভাবে যন্ত্রনা দেয়া। জাবেদ নিজেকে সামলে রাখতে পারে না । তমাকে জাবেদ জানায় সে পুরোনো দিন ফিরে পেতে চায় । তমা অবাক হয় জাবেদ এখনো ভালবাসে তাকে। তমা প্রথমে না করলেও জাবেদের সাথে র্হাটতে শুরু করে স্মৃতির স্মরনিতে । জাবেদের ভালোবাসার কাছে হার মানে তমা । সে বিচ্ছেদের পর জাবেদকে বিয়েতে রাজি হয়।

কিন্তু জাবেদ কি একবারও ভেবে দেখেছে তমার সন্তানের সাথে তার সম্পর্কের কি হবে? তমার সন্তান বড় হয়ে কখনোই তাকে বাবা হিসাবে মেনে নিতে পারবে না। জাবেদের সব ভাবনা এলোমেলো হয়ে যায়। সমস্ত পৃথিবী একদিকে দাঁড়িয়ে আর সে আর তমা একদিকে দাঁড়িয়ে। এতদিনের সব সম্পর্ক ছেড়ে জাবেদ কি একটা নতুন সম্পর্ক শুরু করতে পারবে?

নাটকের গল্প। যেটি প্রচারিত হতে যাচ্ছে আজ শুক্রবার রাতে বেসরকারি টেলিভিশন এনটিভিতে। ৯:৩০ মিনিটে প্রচারিত হতে যাওয়া এ নাটকে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন ইরফান সাজ্জাদ ও তাসনুভা তিশা। এছাড়াও এস এন জনি , ঝিলিক , আজম খান, শেখ স্বপ্না , জ্যোতি ইসলাম , মাসুম রেজোয়ান, কে এস কৃষ্ণ অভিনয় করেছেন মনের পড়ে নাটকে। মুনতাহা বৃত্তের রচনায় এটি পরিচালনা করেছেন এল আর সোহেল।