আজ দেবীর বোধন, কাল মহাষষ্ঠী

হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। সারা দেশে চলছে দুর্গোৎসবের আয়োজন। আগামীকাল শুক্রবার (৪ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত হবে মহাষষ্ঠী পূজা।

আজ বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) গোধূলি লগ্নে মন্দিরে মন্দিরে দেবীর বোধন হবে। সকাল ৬টায় দেবীর বোধন এবং অধিবাসের মাধ্যমে দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়েছে। ঢাক-ঢোলের বাজনা, কাঁসা, শঙ্খের আওয়াজ এবং ভক্তদের উলুধ্বনিতে মুখরিত দেশের প্রতিটি মন্দির ও পূজামণ্ডপ প্রাঙ্গণ।

এদিকে, পূজাকে আনন্দমুখর করে তুলতে দেশের পূজা মণ্ডপগুলোতে সব প্রস্তুতি এরইমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। দুর্গাপূজা উপলক্ষে বিভিন্ন আলোকসজ্জায় বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে উপজেলার মণ্ডপগুলো। এসব মণ্ডপে এখন বইছে উৎসবের আমেজ।

এবারের শারদীয় দুর্গোৎসবে কোনো ধরনের সহিংসতার আশঙ্কা নেই। তার পরেও যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুলিশের যথেষ্ট প্রস্তুতি রয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার শফিকুল ইসলাম।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আসন্ন দুর্গাপূজার প্রস্তুতিতে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

দুর্গাপূজার নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রস্তুতি সম্পর্কে ডিএমপি কমিশনার বলেন, পূজায় কোনো সহিংস ঘটনার গোয়েন্দা তথ্য আমাদের কাছে নেই। আপনারা জানেন ঢাকা মহানগরীর মধ্যে পরপর পাঁচটি বোমা হামলা হয়েছিল, যা ছিল পুলিশের ওপর জঙ্গিদের হামলা। হামলায় সংশ্লিষ্ট টোটাল টিমটা আমরা ধরতে পেরেছি এবং বাকিদের সবাই আমাদের নজরদারিতে রয়েছে। ওইদিক থেকে একটা জঙ্গি হামলার যে আশঙ্কা ছিল, কিন্তু আমরা মনে করি সেটি এখন আর নেই।

পূজায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে জানিয়ে তিনি বলেন, যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য পূজামণ্ডপে আমাদের কন্ট্রোল রুমসহ সব জায়গায় আলাদা ফোর্স মোতায়েন থাকবে। পূজায় কোনো ধরনের নাশকতার আশঙ্কা নেই। তারপরেও কোথাও হামলা হলে সেটি মোকাবিলার জন্য আমাদের যথেষ্ট প্রস্তুতি রয়েছে।

এবার রাজধানীতে ২৩৩টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বিভিন্ন পূজামণ্ডপে নিরাপত্তার জন্য আর্চওয়ে থেকে শুরু করে সিসিটিভি ক্যামেরাসহ সবকিছু থাকবে বলে জানান তিনি।

এছাড়া ২৩৩টির বাইরেও পারিবারিক যে সব পূজামণ্ডপ রয়েছে, তারা চাইলে আমরা নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেব। পূজামণ্ডপে ইভটিজিং ও মাদকের বিস্তার রোধেও পুলিশ সতর্ক থাকবে বলে জানান তিনি। রাজধানীর ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির, খামার বাড়ী কৃষি ইনিষ্টিটিউট সনাতন সমাজ কল্যান সংঘ দূর্গা মন্দির, কলাবাগান সার্বজনীন দূর্গা মন্দির, বনানী সার্বজনীন দূর্গা মন্দির শেরেবাংলা নগর সার্বজনীন দূর্গা মন্দিরে বিশেষ সাজ-সজ্জার মাধ্যমে প্রতিযোগীতা মূলক পূজা অনুষ্ঠিত হয়।