আগামীকাল সাভারের মডেল মসজিদের উদ্বোধন

42
Social Share

উদ্বোধনের অপেক্ষায় দেশে প্রথমবারের মত দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদ। সারা দেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করছে সরকার। এর মধ্যে সাভারেও এই দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছে। ঢাকা আরিচা মহাসড়কের সাভার বাজার বাসস্ট্যান্ডের পাশে রাজালাখ ফার্ম এলাকায় কয়েক একর জায়গা নিয়ে এই মডেল মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছে।

যেখানে এই মডেল মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছে, সেই মসজিদের সামনে ঢাকা আরিচা মহাসড়ক দিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানরা সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে বীর শহীদদের ফুল দিতে আসলে মসজিদটি দেখে তাদেরও মন কাড়বে এক নজরে।

ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে মসজিদটির নির্মাণ কাজ। ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ হলেও ইতোমধ্যে ৫০টি মসজিদের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মসজিদটি উদ্বোধন করবেন।

মডেল মসজিদটির ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আশুলিয়া থানা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ফারুক হাসান তুহিন বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, সারাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করার উদ্যোগ নেন। তার অংশ হিসেবে সাভারেও তিন তলা বিশিষ্ট এই মডেল মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদে নামাজের পাশাপাশি রয়েছে ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।

মসজিদের দেয়ালে লাগানো হয়েছে দৃষ্টিনন্দন কারুকাজ। পুরো মসজিদটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। একসাথে সাত শতাধিক মুসল্লি নামাজ পড়তে পারবেন এখানে। এছাড়া নারীদের জন্য রয়েছে আলাদা নামাজের স্থান। এছাড়াও রয়েছে প্রতিবন্ধী এবাদত খানা, অটিজম কর্নার ও খাবারের ব্যবস্থাসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা। মসজিদটির ভেতরে নিসর্গ শোভার জন্য দৃষ্টিনন্দন ঝাড়বাতি লাগানো হয়েছে।

এছাড়াও মসজিদের দরজা জানালাও দামি কাঠ দিয়ে বানানো হয়েছে। মসজিদের ভিতরে বসানো হয়েছে নানান আসবাবপত্র। মসজিদের দেয়াল রাঙানো হয়েছে বিভিন্ন রঙ। বিদ্যুৎ চলে গেলে সেখানে জেনারেটরের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেই সাথে আগুন নির্বাপণেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বসানো হয়েছে উঁচু মিনারের উপর মাইক। যাতে অনেক দূর পর্যন্ত মানুষ নামাজের আযান শুনতে পারেন। এছাড়া মসজিদের উপরে বসানো হয়েছে বিভিন্ন বড় বড় ষাট গম্বুজ। দূর থেকে যেকোনো মানুষের মন কাড়বে দৃষ্টিনন্দন এই মডেল মসজিদটি। এক নজরে সব পাবেন এই মডেল মসজিদে। মসজিদটি এক নজর দেখার জন্য প্রতিদিন সেখানে ভীড় করছেন অসখ্য মুসলিম।

এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, শুধু নামাজ আদায় নয়, মসজিদ হবে গবেষণা, ইসলামী সংস্কৃতি ও জ্ঞান চর্চা কেন্দ্র। হারিয়ে যাওয়া ইসলামের চিরায়ত এই ঐতিহ্যকে ধারণ করে দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে দৃষ্টিনন্দন ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করায় দেশবাসীর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, মডেল মসজিদটি নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করছে গণপূর্ত অধিদপ্তর। অধিদপ্তরের প্রায় ১২ কোটি ৭ লাখ টাকা ব্যয়ে মডেল মসজিদটির নির্মাণ কাজ প্রায় ১৮ মাসের মধ্যেই শেষ করা হয়েছে।