আওয়ামী লীগে ১৫০০ অনুপ্রবেশকারী চিহ্নিত : ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগে ১৫০০ অনুপ্রবেশকারীকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন দলটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, দলে অনুপ্রবেশকারীদের একটি তালিকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজের তত্ত্বাবধানে তৈরি করিয়েছেন। যে তালিকায় ৫ হাজার অনুপ্রবেশকারীর নাম রয়েছে বলে  জানা গেছে।

‘তালিকা অনুযায়ী সারাদেশে আমাদের সম্মেলন হচ্ছে। এ সম্মেলনে দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের তালিকা প্রধানমন্ত্রীর কাছে সরবরাহ করা হয়েছে। যাতে বিতর্কিত লোক দলের নতুন নেতৃত্বে কোনো পর্যায়ে কিংবা শাখা সংগঠনে স্থান না পায়। এ অনুপ্রবেশকারীদের সংখ্যা প্রায় দেড় হাজারের মত।’

অনুপ্রবেশকারীদের তালিকায় কারা রয়েছে তা উল্লেখ করতে গিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সাম্প্রদায়িক শক্তি থেকে যারা আসে, চিহ্নিত চাঁদাবাজ, চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, চিহ্নিত ভূমিদস্যু, যাদের ইমেজ খারাপ, যাদের রাজনীতি জনগণের কাছে খারাপ- এ ধরনের অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা প্রধানমন্ত্রী নিজের তত্ত্বাবধানে তৈরি করেছেন এবং তার কাছে এই তালিকা আছে।

তবে অন্য দল থেকে আওয়ামী লীগে আসলেও অনেককে অনুপ্রবেশকারী হিসেবে চিহ্নিত করা হয়নি।

তাদের সম্পর্কে ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা ভালো মানুষ, শিক্ষিত মানুষ, জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য তারা দলের নেতৃত্বে আসতে পারে। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি ছাড়া অন্যান্য রাজনৈতিক দলের ক্লিন ইমেজের লোক আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী নয়, তাদের আমরা স্বাগত জানাই।

তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাবেক উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরীকে আমরা দলে নিয়েছি। এরকম ভালো অথবা ক্লিন ইমেজের কেউ থাকলে তাদের আমরা দলে নিতে পারি। এটা ঠিক অনুপ্রবেশের সংজ্ঞায় পড়ে না।

শুক্রবার (০১ নভেম্বর) বিকেলে সাভারে আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকায় সড়ক পরিদর্শনে গিয়ে আসন্ন আওয়ামী লীগের কাউন্সিলের ব্যাপারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।