আওয়ামী লীগের পদ হারালেন নুসরাত হত্যার আসামি রুহুল

ফেনীর সোনাগাজীর ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাতকে হত্যার উদ্দেশ্যে গত ৪ এপ্রিল গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে ১০ এপ্রিল চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মারা যায়। এতে অন্যতম আসামি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিন।

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলার অন্যতম আসামি রুহুল আমিনকে সরিয়ে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক মো. মফিজুল হককে সভাপতি করা হয়েছে।

এবার ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের মাধ্যমে পুনরায় সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে সোনাগাজী পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকনকে।

এর আগে গত ৩০ মে দলের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মো. মফিজুল হককে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়। সাড়ে চার মাস পর দলীয় সম্মেলনে রুহুল আমিনকে বাদ দিয়ে সভাপতি পদে তার নাম ঘোষণা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান।

সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এরপর থেকে তিনি কারাগারেই আছেন। ৩০ মে রুহুল আমিনসহ ১৬ জনের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড চেয়ে আদালতে চার্জশিট জমা দেয়া হয়।