অলিম্পিকে যৌন আবেদনমূলক বিকিনিকাটের বিরোধিতা করে মনোকিনিকাট

64
Social Share

যবে থেকে অলিম্পিক্সের ইতিহাসে জিমন্যাস্টিক্সকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তখন থেকেই রীতি মেনে নারী জিমন্যাস্টদের ফ্লোরে বিকিনিকাট আঁটোসাঁটো পোশাক পরেই পারফরম্যান্স করতে দেখা গেছে। বলা‌ ভালো, জিমন্যাস্টিক্স একমাত্র খেলার বিভাগ নয়, যেখানে প্রতিযোগীদের এই ড্রেসে দেখা যায়। এমন অনেক বিভাগই রয়েছে, যেখানে এ ধরনের পোশাক পরেই অংশগ্রহণের রীতি আছে। তবে এই চলতি রীতির বিরুদ্ধে হাঁটতে দেখা গেল জার্মান নারী জিমন্যাস্টিক্স দলকে। খেলাকে জনপ্রিয় করতে যৌন আবেদনমূলক বিকিনিকাট পোশাকের বিরোধিতা করে মনোকিনিকাট পোশাক পরে প্রতীকী প্রতিবাদে সামিল হলেন জার্মান নারী জিমন্যাস্টরা।

দীর্ঘদিনের অলিখিত রীতি অনুযায়ী জিমন্যাস্টদের বিকিনিকাট পোশাকের লেন্থ অর্থাৎ লম্বায় তা থাকত প্রতিযোগীর নিতম্ব পর্যন্ত। জার্মানরা টোকিও গেমসে কোয়ালিফাইংয়ে যে মনোকিনিকাট ড্রেসটি পড়েছিলেন, তার লেন্থ ছিল পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত। জিমন্যাস্টিক্সের মঞ্চে নারী অ্যাথলিটদের পোশাককে যৌন আবেদনের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতেই এই পন্থা তারা বেছে নিয়েছিলেন।

Bangladesh Pratidin

রবিবার অলিম্পিকের কোয়ালিফিকেশনে জার্মান নারী জিমন্যাস্টিকস দলের নান্দনিক উপস্থাপনা। ছবি: সিএনএন

তবে এবারই প্রথম নয়। এর আগে, গত এপ্রিল মাসে সুইজারল্যান্ডের বাজেলে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপসের আসরে প্রথমবারের মতো তাদের পুরো শরীর আবৃত করা ইউনিটার্ডে দেখা যায়।

বৃহস্পতিবার পোডিয়াম ট্রেইনিংয়ের সময়েও দলটি একই পোশাক পরে।

এপ্রিলে জার্মান জিমন্যাস্টিকস ফেডারেশন জানায়, পোশাকটি ‘জিমন্যাস্টিকস খেলায় সেক্সুয়ালাইজেশনে’র বিরুদ্ধে জানানো প্রতিবাদ।

সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস, সিএনএন