অবশেষে জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহ গ্রেপ্তার

জম্মু ও কাশ্মীরে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পাবলিক সেফটি অ্যাক্ট-এর ভিত্তিতে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানা গেছে। ফারুক আবদুল্লাহকে ওই আইনের বলে টানা ২ বছর বিচার ছাড়াই আটক রাখা যাবে।

গত ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করা হয়। ভারতীয় সংবিধান থেকে ৩৭০ ধারা বিলোপ করে জম্মু ও কাশ্মীরকে দুটি কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করা হয়। এরপর জম্মু ও কাশ্মীরের প্রায় ৪০০ রাজনৈতিক নেতাকে গৃহবন্দি করা হয়। এর মধ্যে রয়েছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতি। গুলাম নবি আজাদ কাশ্মীরের বাইরে থাকায় গৃহবন্দি হওয়ার হাত থেকে বেঁচে যান।

ফারুক আবদুল্লাহকে গত ৪ আগস্ট থেকে শ্রীনগরে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছিল। এবার তাঁকে আটক করা হলো।

একটি সূত্র জানিয়েছে, পাবলিক সেফটি অ্যাক্ট-এর  অধীনে ফারুক আবদুল্লাহকে তাঁর বাড়িতেই বন্দি রাখা যাবে। তবে পরিবারের লোকজন ও আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করার ক্ষেত্রে কোনও বাধা থাকবে না।

সোমবার ভারতের সুপ্রিম কোর্টে একটি মামলার শুনানি হয়। ওই মামলায় এমডিএমকে নেতা ভাইকো প্রশ্ন তোলেন, কেন ফারুক আবদুল্লাহকে আদালতে তোলা হচ্ছে না। এ নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে জবাব তলব করেছে শীর্ষ আদালত।

প্রসঙ্গত, গত ৬ আগস্ট সংসদে ফারুক আবদুল্লার অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন একাধিক সাংসদ। ওই প্রশ্নের উত্তরে অমিত শাহ বলেন, ফারুক আবদুল্লাহকে গ্রেপ্তার বা আটক করা হয়নি। তিনি নিজের ইচ্ছাতে তাঁর ঘরেই রয়েছেন।

সূত্র : জি-নিউজ, টাইমস অব ইন্ডিয়া