অনুরাধাকে ‘গর্ভধারিণী’ মা দাবি এক নারীর, অস্বীকার শিল্পীর

Social Share

ভারতের কেরলার একজন নারী নিজেকে গায়িকা অনুরাধা পড়োয়ালের মেয়ে হিসেবে দাবি করেছেন। তিরুঅনন্তপুরমে জেলা পারিবারিক আদালতে বছর পঁয়তাল্লিশের কারমালা মডেক্স নামে ওই অনুরাধা পড়োয়ালের কাছে বিপুল পরিমাণ ক্ষতিপূরণও দাবি করে মামলা দায়ের করেছেন। কিন্তু অনুরাধা পড়োয়াল বলছেন অন্য কথা। গোটা বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন বলিউডের এই গায়িকা।

এই প্রসঙ্গে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে অনুরাধা পড়োয়াল বলেন, কেউ মূর্খের মতো কোনো মন্তব্য করলে তার উত্তর আমি দেব না। এ বিষয় নিয়ে কথা বলতে আমার রুচিতে বাধছে। সংগীত শিল্পীর মুখপাত্র আবার কারমালাকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলেও দাবি করেছেন। তিনি বলেন, অনুরাধার মেয়ে কবিতা ১৯৭৪ সালে জন্মেছিলেন। তাই করমালার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে। অনুরাধার স্বামীর কথাও বলছে করমালা। কিন্তু সে জানেই না তিনি প্রয়াত হয়েছেন।

এদিকে, কারমালা নামের ওই নারীর দাবি, অনুরাধা ও অরুণ তার বায়োলজিক্যাল মা-বাবা। কারমালার যখন বয়স মাত্র চার দিন ছিল, ওই সময় তারা পালক বাবা ও পালক মাকে দিয়ে দেন। তখন নাকি অনুরাধা এবং তার স্বামী এতটাই ব্যস্ত ছিলেন যে তারা ওই শিশুকে মানুষ করতে পারবেন না বলে জানান। কারমালা আরো দাবি করেন, তার পালক বাবা পোন্নাচান যখন মৃত্যুশয্যায় ছিলেন তখন পুরো বিষয়টি বলে যান। কিন্তু তার পালক মা, যিনি এখন অ্যালঝাইমারে আক্রান্ত, তিনি নাকি বিষয়টি জানতেন না। তাদেরও তিন সন্তান ছিল, কারমালাকে তারা চতুর্থ সন্তান হিসেবে লালন পালন করেন। পুরো ঘটনা জানার পর বিভিন্নভাবে অনুরাধা পাড়োয়ালের সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করেন কারমালা মোডেক্স। কিন্তু তিনি ব্যর্থ হন। অনুরাধা পাড়োয়াল তাকে কোনোভাবেই সহযোগিতা করেননি।

বর্তমানে কারমালা মোডেক্স বিবাহিতা। তিন সন্তানের মা। তিনি জানান, বহুবার চেষ্টা করেও অনুরাধা পড়োয়ালের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি। তার করা মামলার শুনানি ২৭ জানুয়ারি। প্রয়োজনে ডিএনএ পরীক্ষাতেও রাজি তিনি। এবার দেখার পালা জল কোন দিকে গড়ায়!